সাতক্ষীরার সুন্দরবন টেক্সটাইল মিলস শ্রমিক আন্দোলনে অচল : মজুরী বৃদ্ধির দাবি


1389 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার সুন্দরবন টেক্সটাইল মিলস শ্রমিক আন্দোলনে অচল : মজুরী বৃদ্ধির দাবি
আগস্ট ১, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

কে. জামান :
মজুরী বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিক ধর্মঘটে অচল হয়ে পড়েছে সাতক্ষীরার সুন্দরবন টেক্সটাইল মিলস।

কাজে যোগ না দিয়ে সোমবার সকালে মিলের প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় সাড়ে তিনশ’ শ্রমিক। পরে তারা সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে।

এ সময় আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়াতে পুলিশের পক্ষ থেকে শ্রমিকদের বলা হলেও দাবিতে অটল রয়েছে শ্রমিকরা।

Sat-1

আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, তাদের দিনপ্রতি ১২০ টাকা মজুরী দেওয়া হয়। এ নিয়ে গত এক বছর যাবত মিল কর্তৃপক্ষের কাছে মজুরী বাড়িয়ে ৩০০ টাকা করার দাবি জানিয়ে আসছে তারা। কিন্তু তাদের কথায় কর্ণপাত করছে না মিল কর্তৃপক্ষ। এতে বাধ্য হয়ে রাজপথে নামতে হয়েছে তাদের।

শ্রমিকরা অভিযোগ করে বরেন, সকালে আন্দোলন থেকে সরে যাওয়ার জন্য পুলিশ তাদের হুমকি দিয়েছে।

Sat-2

শ্রমিক পবিত্র মন্ডল  জানান, দৈনিক আট ঘণ্টা কাজ করে তারা ১২০টাকা মজুরী পান। এতে যাওয়া-আসার খরচ বাধ দিয়ে তিনবেলা দু’মুটো ডাল ভাতও জোটে না তাদের।

শ্রমিক জাকির হোসেন জানান, মিল কর্তৃপক্ষ তাদের সাথে সব সময় অবিচার করে। বিদ্যুৎ না থাকলে তাদের কর্মঘণ্টা কেটে নিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

শ্রমিক নেত্রী রেক্সনা জানান, সারাদেশে কোথাও এতো কম মজুরী নেই। আমরা মাস শেষে মাত্র ২৫শ থেকে তিন হাজার টাকা বেতন পাই। তাতে ঘর ভাড়াই ওঠে না। দু’মুটো ভাত না পেলে কাজ করবো কেন ?

তিনি বলেন, বেতন ন্যূনতম দৈনিক ৩০০ টাকা করা না হলে মিল অচল করে দেওয়া হবে।
Sat-8
আন্দোলনরত শ্রমিকরা আগামী তিনদিনের মধ্যে দাবি মানা না হলে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট ডাকার হুশিয়ারি দিয়েছে।

এদিকে, সকালে সুন্দরবন টেক্সটাইল মিলের ব্যবস্থাপক আবু হানিফ আন্দোলনরত শ্রমিকদের সাথে গিয়ে বেতন বৃদ্ধির ব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলেও শ্রমিকরা তাতে কর্ণপাত না করে আন্দোলন চালাতে থাকে। সোমবার সকাল ১০ টা পর্যন্ত তারা আন্দোলন থেকে সরেনি। তবে তারা যাতে আন্দোলন থেকে সরে আসে সেজন্য সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা চলছে বলে জানাগেছে।

Sat-4

এ ব্যাপারে ব্যবস্থাপক আবু হানিফ ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে জানান, মিলটি চলছে সার্ভিস চার্জ ভিত্তিতে। বিভিন্ন মিল থেকে মজুরী বৃদ্ধির দাবি উঠছে। আমি বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। উপর থেকে সিদ্ধান্ত আসলে বেতন বৃদ্ধি করা হবে।
##