সাতক্ষীরার ২১ ইউনিয়ন পরিষদে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহন সম্পন্ন


219 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার ২১ ইউনিয়ন পরিষদে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহন সম্পন্ন
সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১ কলারোয়া তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

জালালপুর ইউনিয়নের একটি কেন্দ্রের পাশে বোমা বিস্ফোরন, কলারোয়ায় একটি কেন্দ্রের ভোট স্থগিত, এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর ভোট বর্জন

ইয়ারুল ইসলাম , নির্বাচনী এলাকা থেকে ফিরে :
দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই সাতক্ষীরার তালা ও কলারোয়া উপজেলার ২১ টি ইউনিয়নে টানা বর্ষনের মধ্যে ইউপি নির্বাচনের ভোট গ্রহন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোর থেকে টানা বৃষ্টির কারনে ভোট কেন্দ্র গুলোতে সকালে কিছুটা ফাঁকা দেখা গেলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটারদের উপস্থিততি বাড়তে থাকে। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে মহিলা ভোটারদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। মহিলা ভোটাররা বৃষ্টি-কাদা উপেক্ষা করে ভোট কেন্দ্রে আসে ভোট দিতে।

কলারোয়া উপজেলার কেড়াগাছি ইউনিয়নের কেড়াগাছি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করে স্থানীয় প্রশাসন। ওই কেন্দ্রে ভোট কারচুপির অভিযোগ ওঠায় ভোট স্থগিত করা হয়েছে বলে কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন চৌধুরী জানায়। এছাড়া কলারোয়ার কয়লা ইউনিয়ন পরিষদ এর স্বতন্ত্র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেয় দুপুরে। তার অভিযোগ নির্বাচনি এজেন্ট কে কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয়নি। তালা উপজেলার জালালপুর ইউনিয়ন পরিষদের বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী এম মফিজুল হক লিটু অভিযোগ করে বলেছেন সেখানে নৌকার সমর্থকেরা তার লোকজনের উপর হামলা করেছে। এতে ২ জন আহত হয়েছে।

তালার জালালপুর ইউনিয়নের ১ নং মক্তব কেন্দ্রের পাশে বোমা বিস্ফোরন করে কেন্দ্র দখলে নেয়ার জন্য আতংক সৃষ্টির চেষ্টা করে নৌকার কর্মী-সমর্থকরা বলে অভিযোগ স্বতন্ত্র প্রার্থী মফিদুল হক লিটু। এর আগে সকালে শ্রীমন্তকাটি কেন্দ্রের পাশে নৌকার কর্মী-সমর্থকরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্র্মী-সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয়ার বলে অভিযোগ ওঠে। এদিকে, রোববার রাতে কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে একজন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ও একজন ইউপি সদস্য প্রার্থীসহ কমপক্ষে ১৫ জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। পরে সেখানে ভোট স্থগিত করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন।

সাতক্ষীরা জেলা নির্বাচন অফিসার নাজমুল কবির জানান, কলারোয়া ও তালা উপজেলার ২১টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টি ইউনিয়নে ইভিএমে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে তালায় ৩ টি ও কলারোয়ায় একটিতে ইভিএমে ভোট গ্রহন করা হয়। তিনি আরো জানান, নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দুই উপজেলায় ৮১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছে। এছাড়া সংরক্ষিত সদস্য পদে ২৬০ জন নারী ও সাধারণ সদস্য পদে ৮৩৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

এই দুই উপজেলায় মোট ৩ লাখ ৭৫ হাজার ২৯৪ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৮৮ হাজার ২৪৪ জন ও নারী ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৮৭ হাজার ৫০ জন।

#