‘সাতক্ষীরার ২৭ নদীর মধ্যে ২৫ টিতে জোয়ার ভাটা বন্ধ’


294 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘সাতক্ষীরার ২৭ নদীর মধ্যে ২৫ টিতে জোয়ার ভাটা বন্ধ’
নভেম্বর ৬, ২০১৯ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নদ-নদী রক্ষার্থে আলোচনা সভায় বক্তারা

॥ শাহিদুর রহমান ॥

“ নদী জীবন্ত সত্তা-নদী বাঁচলে ,বাঁচবে মানুষ,বাঁচবে দেশ ”এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা জেলার নদ-নদী ও খাল-বিল রক্ষার্থে করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, সাতক্ষীরা জেলায় ২৭টি নদীর মধ্যে মাত্র (কপোতাক্ষ ও বেতনা ) ২টি নদীতে জোয়ার ভাটা আছে। বাকী নদীগুলোর অধিকাংশই জোয়ার ভাটা বন্ধ হয়েগেছে। সাতক্ষীরার মরিচ্চপ নদীর ৩৭ কিলোমিটার প্রায় পুরোটাই দখল হয়েগেছে। আদী যমুনা নদীর ৩২ কিলোমিটার ধবংস ও দখলের প্রক্রিয়ায় রয়েছে। এয়াড়া সাতক্ষীরার প্রধান নদী গুলোর মধ্যে বেতনা নদী একটি। সেই বেতনা নদীর বিনেরপোতা এলাকায় ২ কিলোমিটারের মধ্যে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠেছে ৭টি ইঁটভাটা। এছাড়া বেতনা নদীর অনেক এলাকায় নদীর মাঝে ভেড়িবাঁধ দিয়ে সেখানে প্রভাবশালীরা মাছ চাষ করছে। এভাবে নদী গুলোকে মেরে ফেলা হচ্ছে। শুধু বেতনা নদী নয়, জেলার অধিকাংশ নদীর দখলদারিত্বেও অবস্থা একই।
স্থানীয় পর্যায়ে নদ-নদী গুলো সুরক্ষার জন্য পদক্ষেপ নেয়া জরুরী হয়ে পড়েছে। তা না হলে পরিবেশ, প্রতিবেশ ধবংস হয়ে যাবে।

বুধবার সকালে সাতক্ষীরা সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন , বেসরকারি সংস্থা এএলআরডি ও হেড যৌথভাবে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।
সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: বদিউজ্জামান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান, কেন্দ্রীয় পানি কমিটির আহবায়ক অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম, জেলা নাগরিক কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক আনিসুর রহিম, সিনিয়র সাংবাদিক কল্যান ব্যানার্জী, সাংবাদিক এম কামরুজ্জামান, উন্নয়ন কর্মী মনিরুজ্জামান প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন স্বদেশের নির্বাহী পরিচালক মাধব দত্ত।

#