সাতক্ষীরায় কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যদিয়ে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত । বহিস্কার ৮


387 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যদিয়ে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত  । বহিস্কার ৮
অক্টোবর ১৬, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
স্বরণকালের কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যদিয়ে এবার সাতক্ষীরায় সরকারি প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০ টায় সাতক্ষীরা জেলা শহরের ২২ টি পরীক্ষা কেন্দ্রে এই শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় সাতক্ষীরার ৭ উপজেলার ১৫ হাজার ৫৮৫ জন প্রার্থী অংশ গ্রহণ করেন। মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১৯ হাজার ৯৪৮ জন। এরমধ্যে ৪ হাজার ৩৬৩ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলেন। সাতক্ষীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে এসব তথ্য জানাগেছে।
সূত্র জানায়, পরীক্ষায় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ৮ জন পরীক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়েছে।
সাতক্ষীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানাগেছে, এবার শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে নতুন পদ্ধতি চালু করা হয়েছে। পরীক্ষার আগের দিন রাতে অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাতে তার বার্তার মাধ্যমে প্রতিটি জেলায় পশ্নপত্র পাঠানো হয়। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী সাতক্ষীরা জেলা শহরের একটি প্রিন্টিং প্রেসে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে সারা রাত ধরে প্রশ্নপত্র ছাপার কাজ করা হয়। শুক্রবার ওই প্রশ্নেই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসানের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ, বিভিন্ন গোয়েন্দা বিভাগের সদস্য ওই প্রিন্টিং প্রেসে দায়িত্ব পালন করেন।ওই প্রেসের ৮ জন শ্রমিক এবং সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের ১০ জন স্টাফ প্রশ্নপত্র ছাপার কাজে অংশ নেয়। প্রেসের ভিতরে কর্মরতদের মোবাইল নিয়ে নেয়া হয়,যাতে তারা নিজের পরিবারসহ বাইরের কারো সাথে কোন ধরনের যোগাযোগ করতে না পারে। ওই প্রেসের সামনে ভ্রাম্যমান টয়লেটের ব্যবস্থা করে প্রশাসন। পরীক্ষা শেষ হওয়ার আগে পর্যন্ত বিশেষ নজরদারিতে ছিলেন প্রশ্নপত্র ছাপার কাজে নিয়োজিতরা। পরীক্ষা শেষ হওয়ার আগে তাদেরকে ওই প্রেসের বাইরে বের হতে দেওয়া হয়নি।
অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (সার্বিক) এ,এফ,এম এহতেশামূল হক, সাতক্ষীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফুল হোসেন,সাতক্ষীরার এনডিসি আবু সাঈদ সহ উদ্ধর্তন কর্মকর্তারা সারারাত ধরে প্রশ্নপত্র ছাপার কাজ তদারকি করেণ।
সূত্র জানায়, সাতক্ষীরা শহরের ২২ টি কেন্দ্রে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে ১ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয় । ২২ জন ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেন। সাতক্ষীরা জেলার বাইরে যশোর থেকে ৫ জন ও মাগুরা থেকে ১ জন ম্যাজিস্ট্রেট আনা হয়।
এছাড়া সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান, অতিরিক্ত জেলা  প্রশাসক অরুণ কুমার, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফ হোসেন,এনডিসি আবু সাঈদ ভ্রম্যমান পর্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

শুক্রবার সকাল থেকে প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রের আশপাশে সকল ফটোকপির মেশিন বন্ধ রাখা হয়।  জেলা শহরের যেসব স্থানে প্রতিবার প্রশ্নপত্র পাওয়ার গুঞ্জুন  ওঠে, সেসব স্থানে কঠোর কজরদারির ব্যবস্থা করে জেলা প্রশাসন।
সব মিলিয়ে এবার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কোন ধরনের অভিযোগ ছাড়াই শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন হয়েছে।