সাতক্ষীরায় অতিরিক্ত যানজট : দেখবে কে ?


674 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় অতিরিক্ত যানজট : দেখবে কে ?
অক্টোবর ৩০, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

*যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং ও অবৈধ যান চলাচল এবং ফুটপাত না থাকার কারণে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট

॥ রুহুল কুদ্দুস ॥

ফুট পথ না থাকায় যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং ও অনুমোদনহী অবৈধ যানবাহন চলাচলের কারণে সাতক্ষীরা পৌর শহরে প্রতিনিয়ত যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে স্কুল, কলেজগামী শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি যাত্রী ও সাধারণ পথচারীরা পড়ছেন চরম ভোগান্তির মধ্যে। যানজটের কারণে ঘটছে ছোট বড় সড়ক দুর্ঘটনার সাথে প্রাণহানির ঘটনা।
গতকাল সরেজমিনে সাতক্ষীরা পৌরশহর ঘুরে দেখা যায়, সাতক্ষীরা শহরের বাঁঙ্গালের মোড়, ইটেগাছা হাটের মোড় সঙ্গীতার মোড়, নিউমার্কেট মোড়, পাকাপুলের মোড়, কদমতলা, কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনাল, খুলনারাড মোড়, সদর হাসপাতালের সামনে ও সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের সামনের সড়কসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিনিয়ত যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। সড়কে কোন ফুটপথ না থাকায় যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করা হচ্ছে। সড়কের দুই ধার দখল করে দাঁড়িয়ে থাকে বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস ও অন্যান্য পরিবহন। বাসে যাত্রী উঠা নামার জন্য এক স্থানে প্রায় ৫ থেকে ১০ মিনিট দাড়িয়ে থাকে। এতে করে যানজটের সৃষ্টি হয়। এছাড়া অনুমোদনহী ইজিবাইক, মহিন্দ্রা, ব্যাটারি চালিতভ্যান, ইঞ্জনভ্রান, রিক্সা, ও ফিটনেস বিহীন বাস, ট্রাকসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহনের কারনেও জটের সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে যানজটের কারণে চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে যাত্রীসহ সাধারণ পথচারিদের। এদিকে রাস্তায় ফুটপথ না থাকায় যানজটের কারণে রাস্তা দিয়ে চলাচল ও পারাপার হতে পারছে না স্কুল ও কলেজগামী শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালনোর কারণে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১৩ অক্টোবর রাতে শহরের বাঙ্গালের মোড় এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় গুরুতর আহত হয়েছেন কালিগঞ্জ থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক আসাদুজ্জামান, বেশ কয়েকদিন আগে জজ কোর্টের সামনে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন মটর সাইকেল আরোহী একটি বেসরকারি কোম্পানির প্রতিনিধি। সঙ্গীতার মোড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রাণ হারান কালিগেঞ্জর এক সেনা সদস্য। জেলা নির্বাচন অফিসের সামনের সড়কে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রাণ হারান মটর সাইকেল চালক বিশ্ববিদালয়ের ছাত্র তামিম ও আরোহী তার বোন গালর্স স্কুলের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী রুবিনা। একই ভাবে যানজটের কবলে পড়ে ন্যাশনাল ব্যাংকের সামনে রিক্সা থেকে পড়ে গিয়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে নিহত হন প্রাইমারী স্কুল শিক্ষিকা সামছুন্নাহার।

যানজটের কারণে সাধারণ জনগণ ঘন্টার পর ঘন্টা সড়কে কষ্ট ভোগ করেন। এ পরিস্থিতি দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। কিন্তু দুর্ভোগ লাঘবে নেয়া হয়নি কোনো কার্যকরি পদক্ষেপ। এলাকাবাসি ও সাধারণ মানুষ যত্রতত্র গাড়ি পার্কিয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদলত পরিচালনার জোর দাবি জানিয়েছেন।
পথচারী পৌরসভার পলাশপোল এলাকার মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, সাতক্ষীরা শহরের কোথাও ফুটপত নেই। এছাড়া যেখানে সেখানে বাস থামিয়ে যাত্রী উঠানামা করায় প্রায়ই বিভিন্ন স্থানে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে করে পথচারীসহ স্কুল কলেজের ছেলে মেয়েদের চলাচলে মারাত্মক বিঘœ সৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়া বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালানোর কারনে দুর্ঘটনা ঘটছে।

এবিষয়ে ট্রফিক সার্জেন্ট মোশরাফ হোসেন জানান, আমাদের ট্রাফিক পুলিশের লোকবল কম। তারপরও যানজট নিরসনে যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। পৌর সভার লাইসেন্সকৃত ইজি বাইকের সংখ্যা ৭’শ এর মত। কিন্তু রাস্তায় চলছে প্রায় তিন থেকে সাড়ে তিন হাজার। অবৈধ এসব যানবাহন আটক করে প্রতিনিয়ত মামলা দিচ্ছি। কিন্তু এসব যানবাহন আটক করে রাখার মত আমাদের পর্যাপ্ত জায়গা নেই। তারপরও আমরা শহরকে যানজট মুক্ত রাখতে চেষ্টা করে যাচ্ছি।


জেলা বাসমিনি বাস মালিক সমিতির আহবায়ক আবু আহম্মেদ জানান, শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে আমাদের নির্ধারিত বাস স্টপেজ রয়েছে। সেখানে ২/৩ মিনিট করে গাড়ি দাড়াতে পারবে। যদি কোন গাড়ি এর চেয়ে বেশী সময় থাকে তাহলে আমরা ব্যবস্থা নিব। এছাড়া বাইপাস সড়ক খুলে দিলে এই সমস্যা আর থাকবে না। তখন শহরের মধ্য দিয়ে বাস ও ট্রাক চলাচল বন্ধ করে দেয়ার পাশাপাশি বাস ও ট্রাক উভয় টার্মিনাল দূরে সরিয়ে নেয়া হবে। ফলে শহরের এই যানজট আর থাকবে না বলে তিনি জানান।
সাতক্ষীরা পৌর মেয়র তাজকীন আহমেদ চিশতী জানান, শহরে চলাচলের জন্য প্রায় ৬’শ ইজি বাইকের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। বাকি অবৈধ ইজিবাইক চলাচল বন্ধের জন্য শহরে ঢোকার ৫টি পয়েন্টে স্বেচ্ছা সেবক দিয়ে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। খুব শিঘ্রেই এসব অবৈধ যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রনে আসবে।
এস,এম মোস্তফা কামাল জনান,সব বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছি। শিঘ্রেই শহরের যানজটের সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়া হবে।

##