সাতক্ষীরায় আইলা দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা


198 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় আইলা দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা
মে ২৫, ২০১৯ দুুর্যোগ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

ভয়াল ২৫ মে সর্বগ্রাসী আইলার ১০ বছর পূর্তি। ২০০৯ সালের এই দিনে সর্বনাশা আইলা’র আঘাতে লন্ড ভন্ড হয় সাতক্ষীরাসহ দক্ষিণ-পশ্চিম উপকুলীয় জনপদ। দিবসটি উপলক্ষ্যে সাতক্ষীলায় র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে শ্যামনগর উপজেলার নকিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাঠ থেকে একটি র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি উপজেলার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জলবায়ু পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক নাজিবুর রহমানের সভাপতিত্ব আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম আতাউল হক দোলন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শ্যামনগর উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান, পানি উন্নয়ন বোড উপ সহকারি প্রকৌশলী সাজ্জাদুর রহমান, জলবায়ু পরিষদের সদস্য আশেক-ই এলাহি প্রমুখ।

বক্তবা এ সময় বলেন, আমরা আমাদের বাপ দাদাদের ভিটা বাড়ী ছেড়ে চলেযেতে চাই না। আইলা দুর্গত এলাকায় আমরা ত্রাণ চাইনা, চাই টেকসই বেঁড়ি বাঁধ। তারা আরো বলেন, চাহিদা অনুযায়ী সাইক্লোন শেল্টারের সংখ্যাও খুবই কম।এ জন্য চাই আরো কিছু নতুন সাইক্লোন সেন্টারসহ উপকুলীয় এলাকায় সুপেয় পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থা।
প্রসঙ্গত: ২০০৯ সালের ২৫ মে সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস ও ঘুর্নিঝড়ের প্রভাবে সৃষ্ট সর্বনাশা “আইলা” আঘাতে দক্ষিণ-পশ্চিম উপকুলীয় জনপদ সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর, আশাশুনি ও খুলনা জেলার কয়রা ও দাকোপ উপজেলার উপকুলবর্তী বিস্তীর্ণ এলাকা লন্ডভন্ড হয়ে যায়। স্বাভাবিকের চেয়ে ১৪-১৫ ফুট উচ্চতায় সমুদ্রের পানি এসে নিমিষেই ভাসিয়ে নিয়ে যায় নারী ও শিশুসহ কয়েক হাজার মানুষ, হাজার হাজার গবাদী পশু আর ঘরবাড়ি । গৃহহীন হয়ে পড়ে লাখো পরিবার।