সাতক্ষীরায় এক বছরে মাদক মামলায় ৩৩৬ জন আটক


178 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় এক বছরে মাদক মামলায় ৩৩৬ জন আটক
জানুয়ারি ২৩, ২০২২ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

উদ্ধার হয়েছে বিপুল পরিমান গাঁজা, ইয়াবা, ফেন্সিডিল, দেশি-বিদেশী মদ ও সেন্ট্রাডল ট্যাবলেট

আব্দুস সামাদ ::

সাতক্ষীরার জেলার আটটি থানা ও ডিবি পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে ৩৩৬ জন কারবারীকে আটক করা হয়েছে। ২০২১ সালের ১লা জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এ সংখ্যক মাদক কারবারীকে আটক করা হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে ৩২৮টি মামলাও রুজু করেছে পুলিশ। আটককৃত মাদকের মধ্যে বেশির ভাগই গাঁজা। তবে মাদকের সাথে জড়িয়ে থাকা সকল প্রকার অপরাধ বন্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে মাদকের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন পুলিশ সুপার।

এদিকে, মাদক বিরোধী সবচেয়ে বেশি অভিযান পরিচালনা করেছে সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশ। আসামী আটকের দিক থেকেও এগিয়ে আছে সাতক্ষীরা সদর থানা। অভিযানে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কলারোয়া থানা এবং তৃতীয় স্থানে রয়েছে আশাশুনি থানা। তবে, অভিযানে সবচেয়ে পিছিয়ে আছে তালা থানা। অভিযানে পিছিয়ে থাকার আরও তিনটি থানা হলো যথাক্রামে পাটকেলঘাটা থানা, শ্যামনগর থানা ও দেবহাটা থানা। তবে আটটি থানার পাশাপাশি মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে সফলতা দেখিয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের দেওয়া তথ্য থেকে দেখা যায়, গত এক বছরে জেলার আটটি থানা ও ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদকসহ ৩৩৬ জনকে আটক করেছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে ৩২৮টি। এ সময়ের মধ্যে দুই হাজার ৩৯ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৭১ কেজি ৩০৮ গ্রাম গাঁজা, ৫৬টি গাঁজার গাছ, দুই হাজার ৬১৪ বোতল ফেন্সিডিল, ৬৫ লিটার দেশি মদ, ৫৯ বোতল বিদেশী মদ ও ১৩৯ পিস সেন্ট্রাডল ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে পুলিশ।
পুলিশের দেওয়া তথ্য আরও দেখা যায়, ২০২১ সালে সাতক্ষীরা সদর থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ৯১ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ১১৫টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ৩৪৩ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ৪২ কেজি ১৫৮ গ্রাম গাঁজা, ৫৯৮ বোতল ফেন্সিডিল, এক লিটার দেশি মদ, ২৬ বোতল বিদেশী মদ ও ১৩৯ পিস সেন্ট্রাডল ট্যাবলেট।

কলারোয়া থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ৭৪ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ৮১টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ৯৭৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, সাত কেজি ৬৩০ গ্রাম গাঁজা, গাঁজার গাছ একটি, এক হাজার ৫০৫ বোতল ফেন্সিডিল, তিন লিটার দেশি মদ, ২০ বোতল বিদেশী মদ।

তালা থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ১৯ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ১৩টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ২৭ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, দুই কেজি ৩৫৫ গ্রাম গাঁজা, ৭৭ বোতল ফেন্সিডিল, ৫১ লিটার দেশি মদ ও ১০ বোতল বিদেশী মদ।
কালিগঞ্জ থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ৪২ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ৩৩টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ৪৪৯ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, নয় কেজি ৭৩৪ গ্রাম গাঁজা, ১৪৩ বোতল ফেন্সিডিল।

শ্যামনগর থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ২১ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ১৬টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ৮১ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, দুই কেজি ৯৭০ গ্রাম গাঁজা ও ১৯ বোতল ফেন্সিডিল।
আশাশুনি থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ৪২ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ৩৪টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ১০৯ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, চার কেজি ৭০ গ্রাম গাঁজা, গাঁজার গাছ ৫৫টি ও ৩৮ বোতল ফেন্সিডিল।
দেবহাটা থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ২৫ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ২১টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ৩৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, এক কেজি ৪৬৬ গ্রাম গাঁজা, ১৯২ বোতল ফেন্সিডিল, তিন লিটার দেশি মদ, তিন বোতল বিদেশী মদ।
পাটকেলঘাটা থানায় মাদকসহ আটক করা হয়েছে ২২ জন মাদক কারবারীকে। এ থানায় মাদক সংক্রান্ত মামলা রুজু করা হয়েছে ১৫টি। একই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে ২০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৯২৫ গ্রাম গাঁজা, ৪২ বোতল ফেন্সিডিল ও সাত লিটার দেশি মদ।
সাতক্ষীরা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি ইয়াছিন আলম চৌধুরী বলেন, জেলায় মাদকের বিরুদ্ধে যে সকল অভিযান পরিচালিত হয় তার বেশির ভাগই পরিচালনা করে গোয়েন্দা পুলিশ। জেলায় মাদকের বড় বড় চালান আটক করে সফলতা দেখিয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। আগামীতেও মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।
সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম (বার) বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের আমলে ক্রমেই গতি পেয়েছে মাদকবিরোধী অভিযান। পুলিশ মহাপরিদর্শকের নির্দেশনায় বর্তমানে মাদকবিরোধী অভিযানে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিদিন ব্যাপক অভিযান চলছে। মাদক কারবারিরা নতুন কৌশলে নতুন ধরনের মাদকদ্রব্যের কারবার শুরু করলেও কঠোর নজরদারিতে তা ধরা পড়ছে।
তিনি আরও বলেন, মাদকের সাথে আরও অনেক ধরনের অপরাধ জড়িত থাকে। তাই মাদক নির্মূল করতে পারলে অপরাধ অনেক অংশে কমানো সম্ভব হবে। অপরাধ প্রবনতা কমাতে যোগদানের পর থেকে মাদকবিরোধী অভিযান গতিশীল করা হয়েছে। ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে মাদকের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ।
তিনি আরও বলেন, ২০২১ সালে জেলায় ৩২৮টি মাদক মামলায় ৩৩৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অভিযানের সঙ্গে বেড়েছে মাদকদ্রব্য উদ্ধার, আসামি গ্রেপ্তার ও মামলার সংখ্যাও। জেলা পুলিশ নতুন প্রযুক্তি ও কৌশলে মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে এবং আগামীতে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।