সাতক্ষীরায় কাঁচা মরিচের কেজি ২’শ টাকা !


705 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় কাঁচা মরিচের কেজি ২’শ টাকা !
সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আসাদুজ্জামান :
কাঁচা মরিচে ঝাল না থাকলেও দামের ঝাঝে ধোঁয়া উড়ছে সাতক্ষীরায় ক্রেতাদের মাথা দিয়ে। কাঁচা বাজারে যেনো লেগেছে আগুন। সাতক্ষীরা বড় বাজার, পুরাতন সাতক্ষীরা হাটখোলাসহ ৭ উপজেলায় কাঁচা বাজারের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে কাঁচা মরিচের দাম ৮০ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ২০০ টাকা। রোজার সময় স্বাভাবিক থাকলেও মাত্র অল্পদিনের ব্যবাধানে সকল নিত্যা প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ায় ক্রেতারা সাধারণ অস্বস্তিতে রয়েছে।

সোমবার সাতক্ষীরা বড় বাজার ও পুরাতন সাতক্ষীরা হাটখোলা ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি পটল ৪০টাকা, বেগুন ৭০ টাকা, শসা ৩০টাকা, উচ্ছে ৬০টাকা, পুঁইশাক ২০টাকা, ওল ৫০টাকা, কাঁচা মরিচ ২০০ টাকা, আলু ২৩ টাকা, কাঁচ কলা ৩০ টাকা, পেয়াজ ৮০ টাকা, রসুন ৬০ টাকা, গাজর ৫০টাকা, ঝিঙা ৪০টাকা, কাকরোল ৫০টাকা, ঢেড়স ৪০টাকা, পেপে ২৫ টাকা, টমেটো ৭০টাকা।

সাতক্ষীরা জেলার সর্বৃহৎ বাণিজ্য কেন্দ্র পাটকেলঘাটা বাজারেও একই অবস্থা। তালা উপজেলায় সকল প্রকার ফসল উৎপাদন হলেও টানা বৃষ্টিতে নি¤œ অঞ্চল তলিয়ে যায় কাঁচা বাজারের সকল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। অল্প কয়েক দিনের ব্যবধানে কাঁচা বাজার অশান্ত হয়ে উঠেছে। পাইকারী বাজারে পণ্যের দাম বেশির অজুহাতে খুচরা বিক্রেতারা দাম বাড়াচ্ছে। বাজারে শাক-সবজিসহ কাঁচামালের দাম আকাশ চুম্বি। এছাড়া কাচাবাজার অন্যান্য শাক-সবজি ও তৈরিতরকারীর দাম আগের তুলনায় বেড়েছে। রমজান মাসে এ সকল জিনিসের দাম অনেক কম ছিল বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।

এদিকে বাজারে মাছের সরবরাহ অনেকটা বেড়েছে কিন্তু দাম কিছুটা বেড়েছে। প্রতি কেজি রুই মাছ ২২০ টাকা, কাতলা মাছ ২৫০ টাকা, চিংড়ি মাছ ৪৬০ টাকা কেজি, তেলাপিয়া ১৬০ টাকা, দেশী মুরগী ২৮০ টাকা, পোল্ট্রি ১৪০ টাকা, গরুর মাংস ৩৫০ টাকা, খাসি ৫০০ টাকা।

এছাড়া বাজারে মুসরির ডাল ৯৬ টাকা, বুট ডাল ৪৪ টাকা, ছোলার ডাল ৭০ টাকা, ভৌজ্য তেল সয়াবিন ৮২ টাকা, সুপার ৭২ টাকা, পাম্প তেল ৬৭ টাকা বিক্রি হচ্ছে। ক্রেতারা জানান সরকারের সুষ্ঠু মনিটারিং এর অভাবে বাজারের পণ্যের দাম ইচ্ছামত বাড়াচ্ছে কমাচ্ছে ব্যবসায়ীরা এখন বিদ্যুতের দাম ও গ্যাসের দাম বাড়ানোর অযুহাতে জিনিষের দাম আরেক দফা বাড়ার আশংকা করছেন তারা।

সাতক্ষীরা বড় বাজার কাচা মাল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রওশান আলী জানান, জেলার বেশীরভাগ উপজেলায় জলাবদ্ধতার কারণে এবং সাতক্ষীরা সবচেয়ে বেশী কাচা তরকারি উৎপদনকারী উপজেলা তালার কৃষকরা এবছর তরিতরকারীর চাষাবাদ করতে পারেনি। যে কারণে কাচা পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

বড় বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী আবুল কাশেম জানান, জেলায় কাঁচা মরিচ না থাকার কারণে বাইরে থেকে আমদানি করতে হচ্ছে যে কারণে দাম বেশি। তবে এরকম অবস্থা বেশি দিন থাকবে না বলে আশা করা যাচ্ছে।

শহরের রাজার বাগান এলাকার সাধারণ ক্রেতা আব্দুল আজিজ জানান, এবার রমজান মাসে জিনিসপত্রের দাম কিছুটা কম থাকালেও বর্তমান সময়ে কাঁচা মালের দাম অস্বাভাবিক, মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষের পক্ষে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষপত্র ক্রয় করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। তবে কাঁচাবাজারে পণ্যের দাম একটু বেশি হওয়ায় অস্বস্তিতে রয়েছে সাধারণ ক্রেতারা। ভেজালপণ্যসহ বাজার মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা চায় ক্রেতা সাধারণ।

সাতক্ষীরা জেলা মার্কেটিং অফিসার সালেহ মোহম্মদ আব্দুল্লাহ বলেন, বৈরী আবহাওয়ার এবং নি¤œ অঞ্চাল প্লাবিত হওয়ায় নিত্যা প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে নিয়মিত বাজারগুলো মনিটরিং করা হচ্ছে। উৎপাদন বাড়লে সকল নিত্যা প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমবে কমবে বলে আশা করা যাচ্ছে ।