সাতক্ষীরায় গৃহবধু রুবাইয়াকে কুপিয়ে জখম মামলার আসামী মিজান এখন পুলিশের খাঁচায়


868 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় গৃহবধু রুবাইয়াকে কুপিয়ে জখম মামলার আসামী মিজান এখন পুলিশের খাঁচায়
জুন ১, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আব্দুর রহমান ::
জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গৃহবধু রুবাইয়া সুলতানাকে কুপিয়ে জখম ও শ্লীলতহানী করার ঘটনায় সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা করায় আসামী মিজানুর রহমানকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ। সদর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় আসামী মৃত আতিয়ার রহমানের ছেলে মিজানুর রহমানকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ। তাকে আটক করায় এলাকায় স্বস্তির নি:শ্বাস পেয়েছে এলাকাবাসী। এলাকাবাসী রহিম, সাত্তার, শরিফুল, আবু হাসান, আবজাল ও গৃহবধু রুবাইয়া জানান, মিজানুর রহমান একজন লম্পট। তার অত্যাচারে এলাকার সাধারণ মানুষ আতংকিতভাবে জীবনযাপন করেন। পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আবু সায়ীদের নেতৃত্বে সে এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে থাকে এবং বিভিন্ন মানুষকে হয়রানী, মামলা ও জীবননাশের হুমকি দেয়। তার সুষ্টু বিচার দাবী করেন এলাকাবাসী।
ঘুড্ডেরডাঙ্গী গ্রামের জয়নুর রহমান, মনিরুল ইসলাম, ওসমান, মিজানুর রহমান, আনোয়ার হোসেন, মোস্ত, সাইফুল ইসলাম, রাশিদুজ্জামান, মোমেনা খাতুনসহ কয়েকজন সন্ত্রাসী ও লাঠিয়াল বাহিনী ধারালো দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে রবিউল ইসলামের ভিটে বাড়িতে অনধিকার প্রবেশ করে আম গাছ, মেহগনি গাছ, বেগুন গাছ ও বাঁশগাছ কাটতে থাকে। এসময় রবিউল ইসলাম ও তার কন্যা রুবাইয়া সুলতানা নয়ন ঘটনা দেখে বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করলে আসামীরা দলবদ্ধভাবে তাদের উপর হামলা চালায়। এসময় জয়নুর রহমান ও মনিরুল ইসলাম রুবাইয়াকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো দা দিয়ে মাথায় কোপ দেয়। নারীলোভী মোস্ত রুবাইয়াকে শ্লীলতহানী ঘটায়। আনোয়ার হোসেন রুবাইয়ার গলায় থাকা একটি স্বর্ণের চেইন ছিড়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ও স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে এসে রুবাইয়াকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে গুরুত্বর জখম অবস্থায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চিকিৎসা করেন। বর্তমানে তিনি সদর হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন।
##