সাতক্ষীরায় চাকুরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, ডিবির হাতে গ্রেফতার


336 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় চাকুরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, ডিবির হাতে গ্রেফতার
অক্টোবর ২০, ২০২০ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান :
সাতক্ষীরায় পুলিশ কন্সটেবলসহ বিভিন্ন সরকারি পদে চাকুরি দেওয়ার নামে অন্তত ২০ জনের কাছ থেকে মোটা টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে নুরুল ইসলাম নামের এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে সাতক্ষীরা গোয়েন্দা পুলিশ ডিবি।
গ্রেফতারকৃত নুরুল ইসলাম জেলার শ্যামনগর উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের চকবারা গ্রামের আবদুস সামাদের ছেলে। সে বিভিন্ন সময়ে শ্যামনগর সহ সাতক্ষীরা জেলার একাধিক ব্যক্তির নিকট থেকে চাকুরি দেওয়ার কথা বলে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক ইয়াসিন আলম চৌধুরী জানান, চাকুরি দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ২০ টি লিখিত অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে আমাদের হাতে। এই অভিযোগে মঙ্গলবার গভীর রাতে রাতে নুরুল ইসলামকে গোপালগঞ্জ জেলা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন পালিয়ে ছিল।
তিনি আরও জানান, আটক নুরুল ইসলাম সরকার দলীয় উচ্চ পর্যায়ের নেতাদের সাথে ছবি তুলে তাদের নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারণা চালিয়ে আসছিলো। তার বিরুদ্ধে আগের দুটি প্রতারণার মামলা রয়েছে। একাধিক প্রতারণার অভিযোগের প্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বলে জানান তিনি।

#

সাতক্ষীরায় ফেনসিডিলসহ আট মামলার আসামি আটক

কে এম আনিছুর রহমান,সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ॥
সাতক্ষীরা জেলা ডিবি পুলিশের অভিযানে ৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ আট মাদক মামলার আসামি গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত দশটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দেবহাটা উপজেলার বহেরা উত্তর পাড়ার নছিমুদ্দনের বাড়ির সামনের রাস্তায় ফেনসিডিল বিক্রি কারার সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ী হলেন দেবহাটা উপজেলার বহেরা উত্তর পাড়ার মৃত আহম্মদ আলী মৃধার ছেলে হাসান মৃধা।
জেলা ডিবি পুলিশের ইনচার্জ ওসি মোঃ ইয়াছিন আলম চৌধুরী জানান, জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই মুনিরুল ইসলাম, এএসআই নাসির উদ্দিন,রাজু আহমেদকে সাথে নিয়ে দেবহাটার বহেরা থেকে হাসান মৃধা নামের এক মাদক ব্যবসায়ী কে ৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করি।
আটককৃতের নামে আটটি মাদক মামলা রয়েছে। সে বহুদিন যাবত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ওই এলাকায় মাদকের ব্যবসা চালিয়ে আসছিলো। মাদকের মামলা দিয়ে তাকে আদালতে প্রেরণের প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি।