সাতক্ষীরায় চাচার বিরুদ্ধে জমি দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


404 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় চাচার বিরুদ্ধে জমি দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৭ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

 

স্টাফ রিপোর্টার ::
আমি আব্দুর রাজ্জাক গাজী আমার পৈত্তিক সম্পত্তিতে জন্মাবদি বসবাস করে আসছি। সেনেরগাতি মোজায় ১০ শতক জমির মধ্যে আমার প্রাপ্প ৫ শতক। অথচ চাচা আলিমুদ্দিন গাজীর জেলে নুরুল হক মোস্তফ আমিনুর রহামান কামরুল গাজী সামসুর গাজীর ছেলে কবির গাজী ও সামসুরের স্ত্রী মনোয়ারা খাতুন ঐ ১০ শতক জমি জালিয়াতির মাধ্যমে রেকর্ড করে নিয়েছে। এখন তারা বলছে আমি নাকি তাদের নামে জমি লিখে দিয়েছি।
শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানান পাটকেলঘাটা থানার সেনেরগাতি গ্রামের আবদুর রাজ্জাক। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন পরের জমিতে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করি। আমাদের জমি জালিয়াতির বিষয়ে অভিয়োগ দেওয়ার পর গত ২২ জুলাই পাটকেলঘাটা থানা পুলিশ দুই পক্ষকে ডেকে কাগজপত্র যাচাই করে একটি শালিশ নামা তৈরি করে দেয় এবং পশ্চিম পাশে আমাকে এবং পূর্ব পাশে তাদেরকে দেওয়া হয়। এরপর সেখানে ঘেরাবেড়া দেওয়া হয়। অথচ ঐ জমির বাঁশ কাটতে গেলে নুরুল হকের ছেলে মান্নন, কুদ্দুর, সমাদ ও হান্নন আমাকে মারপিট করে আমাকে গুরুতর আহত করে। এরপরও সামছুর রহমানের স্ত্রী মনোয়ারা খাতুন আদালতে ১৪৫ ধারা মামলা করে।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ৩২ শতক জমির মধ্যে থাকার পুকুরের উত্তর পাশ থেকে শালিশ নামার মাধ্যমে আমার প্রপ্প হয় ৭ শতক সেখাসেও আমি যেতে পারছি না। ঐ জমিতে যাতে যেতে না পারি সেজন্য মোত্তফা গাজী নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আরো একটি মামল করে। তিনি বলেন ৩৫ শতক জমির মধ্যে প্রাপ্ত ৯ শতকের ৫ শতক আমি বিক্রি করি বাকি ৪ শতক ও জালিয়াতির মাধ্যমে রেকর্ড করে নিয়েছে। তিনি আরও বলেন নুরুল হক বিলান জমি ক্রয়ের নামে আমার ১২ শতক জমি রেকর্ড করে নিয়েছে। এ ব্যাপারে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান একটি শালিশ নামা করে দেন। কিন্তু নুরুল হক ও তার ছেলেরা আমার ছেলেদের মারপিট করে ঐ জামি থেকে হঠিয়ে দিয়েছে।
আবুদর রাজ্জাক গাজী এ জালিয়াতির বিরুদ্ধে প্রতিকার দাবী করনে। এ ব্যাপরে তিনি প্রশানেরে দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন। সংবাধ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন মুনছুর আলি ও সখিনা খাতুন।