সাতক্ষীরায় চেয়ারম্যান মোশাররফ খুন : মোটিভ উদ্ধারে মাঠে নেমেছে পুলিশ


1993 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় চেয়ারম্যান মোশাররফ খুন : মোটিভ উদ্ধারে মাঠে নেমেছে পুলিশ
সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৮ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::
সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউপি চেয়ারম্যান কে এম মোশাররফ হোসেন মুখোশধারী সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হয়েছেন। শনিবার রাত ১১টার দিকে কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা বাজারে এ ঘটনাটি ঘটে। তিনি এ সময় স্থানীয় যুবলীগ অফিসে বসেছিলেন।
চেয়াম্যান মোশারফ হোসেন কৃষ্ণনগর গ্রামের মৃত সৈলুদ্দিন কাগুজির ছেলে। তিনি সাতক্ষীরা জেলা জাতীয় পার্টিার সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এবং খুলনা বিভাগের জাপার একমাত্র নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের তিনবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান। তিনি একটি সহিংস মামলার চাজর্শীটভূক্ত আসামী ছিলেন। এই হত্যাকান্ডের ঘটনায় পুলিশ এখনো কাউকে আটক করতে পারেনি। তবে হত্যার ক্লু উদ্ধার করতে পুলিশ মাঠে নেমেছে।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, এই হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ধারের জন্য তিনটি মোটিভ নিয়ে পুলিশ মাঠে নেমেছে। সূত্র জানায়, স্থানীয় একটি ডাকাত দলের সাথে চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনের বিরোধ ছিল। চেয়ারম্যানের কারণে ওইসব ডাকাতরা এলাকায় উঠতে পারেনা। দীর্ঘদিন ধরে তাদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। এছাড়া স্থানীয় একজন মেম্বরের সাথে বেশ কিছুদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনের। সম্প্রতি ওই মেম্বর মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলন করে তার বহিস্কার দাবী করেন । সূত্র আরো জানায়, কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ১৫০ বিঘা আয়তনের সাপখালী খালের দখল নিয়ে স্থানীয় নূর ইসলাম ও তার ছেলে আবু বক্করের সাথে বিরোধ ছিল তুঙ্গে। সরকারি ওই খাল দখলমুক্ত করতে চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনের শক্ত অবস্থান ছিল। এছাড়া আরো কয়েকটি মোটিভ নিয়ে পুলিশ মাঠে নেমেছে।

কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) রাজিব হোসেন প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানান, চেয়ারম্যান কে এম মোশাররফ হোসেন (৫২) স্থানীয় কৃষ্ণনগর যুবলীগ অফিসের সামনে বসেছিলেন। এ সময় ছয় জন যুবক তিনটি মটর সাইকেলযোগে সেখানে এসেই প্রথমে বাজারে কয়েকটি ককটেল বোমা ফাটায়। এতে আতংকিত হয়ে দোকান পাট বন্ধ হবার সুযোগে মুখোশধারী সন্ত্রাসীরা যুবলীগ অফিস চত্বরে ঢুকে চেয়ারম্যানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে । এর পর গালায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করে দ্রত পালিয়ে যায়। কালিগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার মহসিন আলী তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
কালিগঞ্জ সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) ইয়াসিন আলি রোববার দুপুরে জানান, চেয়ারম্যানের লাশ সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন হত্যার আলামত হিসাবে বেশ কয়েকটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। তবে হত্যার কারণ এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ। এ ঘটনায় এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।
##