সাতক্ষীরায় জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে সুশাসন – কেন, কিভাবে ও করনীয় শীর্ষক মুক্ত সংলাপ


437 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে সুশাসন – কেন, কিভাবে ও করনীয় শীর্ষক মুক্ত সংলাপ
ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আলতাফ হোসেন বাবু ::

সাতক্ষীরায় ‘জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে সুশাসন – কেন, কিভাবে ও করনীয়’ শীর্ষক মুক্ত সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশণাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর অনুপ্রেরনায় গঠিত সচেতন

নাগরিক কমিটি (সনাক) এবং সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন এর যৌথ আয়োজনে মঙ্গলবার সাতক্ষীলা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে সুশাসন – কেন, কিভাবে ও করনীয়’ শীর্ষক উক্ত মুক্ত সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো: মহিউদ্দিন এর সভাপতিত্বে ‘জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে সুশাসন – কেন, কিভাবে ও করনীয়’ শীর্ষক মুক্ত সংলাপে

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সনাক’র সাতক্ষীরা সভাপতি- ড. দিলারা বেগম। বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ.এফ.এম এহতেশামূল হক, সাবেক মন্ত্রী ডা. আফতাবুজ্জামান।

মুক্ত সংলাপে জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে সুশাসন – কেন, কিভাবে ও করনীয় শীর্ষক প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন টিআইবি’র সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার জাকির হোসেন খান।

অনুষ্ঠানে জলবায়ু পরিবর্তনে বাংলাদেশের ক্ষতির মাত্রা ও বরাদ্দের তুলনামূলক চিত্র উপস্থাপন করা হয়। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের ক্ষতি ও ঝুঁকি মোকাবেলার জন্য সরকারের গৃহীত বিভিন্ন জাতীয় পর্যায়ে উদ্যোগ এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ক্ষতি পূরণ আদায়ে পদক্ষেপ ও প্রতিশ্রুতির দিক গুলো তুলে ধরা হয়।

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুকি মোকাবেলায় কোন ঋণ নয় অনুদান পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য সংলাপে অংশ গ্রহণকারী সকলে ঐক্যমত পোষণ করেন।

বক্তারা বাংলাদেশের জাতীয় পর্যায়ে জলবায়ু পরিবর্তনের সম্ভাব্য প্রভাবে সাতক্ষীরা জেলার সম্ভাব্য ঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে জলবায়ু ঝুঁকি মোকাবেলায় টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে জলবায়ু ইস্যুকে প্রকল্প গ্রহণের মূল ধায়য় যুক্ত করার দাবী উত্থাপন করেন।

প্রকল্প গ্রহণের ক্ষেত্রে স্থানীয় নাগরিকদের নিকট থেকে বস্তুনিষ্ট ভাবে ঝুঁকির মাত্রা যাচাই ও তাদের মতামতের গুরুত্ব দেয়ার পাশাপাশি প্রকল্পে বাস্তবায়ন পর্যায়ে স্থানীয় জনসাধারনের অংশগ্রহণ এবং স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার প্রস্তাব উঠে আসে।

সাতক্ষীরাকে রক্ষা করতে, ঝুঁকি পূর্ণ জেলা হিসেবে শীঘ্রই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, এলজিইডি সহ দায়িত্বশীল দপ্তর গুলো প্রকল্প গ্রহণ করারও দাবী জানান।

এছাড়াও জেলা প্রশাসকের তত্ত্বাবধানে সকল চলমান প্রকল্পের কার্যক্রম মনিটরিং জোড়দার করার জন্য জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। জেলা প্রশাসকের নিকট সাতক্ষীরা জেলার জলবায়ু ঝুঁকির সম্ভাব্য ক্ষতির মোকাবেলায় কি ধরণের প্রকল্প চাহিদা

রয়েছে তা যাচাই করতে কমিউনিটি পর্যায়ে ঝুকির মাত্রা পরিমাপ জরিপ করার মাধ্যমে জেলা ভিত্তিক পরিকল্পনা গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরা হয়। যাতে নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে সাতক্ষীরা ক্ষতির দিক বিবেচনায় নিয়ে জলবায়ু ঝুঁকি মোকাবেলায় বরাদ্দ পেতে যৌক্তিক দাবী উপস্থাপন করা যায়।

এসময় বক্তারা সাতক্ষীরার জলাদ্ধতা নিরসন করার জন্য প্রাণসায়ের ও লাবণ্যবতী খাল, বেতনা নদী রক্ষার জন্য প্রকল্প গ্রহণেরও দাবী জানান।

সংলাপে সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন বলেন, জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে জনগণের অংশগ্রহণ ও স্বচ্ছতা জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার মাধ্যমেই সরকারের লক্ষ্যিত টেকসই অর্জন উন্নয়ন সম্ভব।

তিনি বলেন, টিআইবি এজন্য আমাদের দিক নির্দেশক হিসেবে সেই পথ গুলো দেখাচ্ছে মাত্র।এসময় জেলা প্রশাসক প্রতিটি দপ্তরের বা প্রকল্পের কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে জনগণের মুখোমুখি আয়োজনের মাধ্যমে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করতে তাগিদ প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাতক্ষীরা পৌর মেয়র মো. তাজকিন আহম্মেদ (চিশতি), সনাক জলবায়ু বিষয়ক উপ-কমিটির আহ্বায়ক ও সনাক সদস্য কল্যাণ ব্যাণার্জি, পৌর কাউন্সিলর শেখ শফিক উদ দৌলা সাগর, সামাজিক বন বিভাগের

ফরেস্ট রেঞ্জার মো: নজরুল ইসলাম, জেলা তথ্য অফিসার শেখ শাহানওয়াজ করিম, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ অহিদুল আলম, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তারাময়ী মুখার্জী, যুব উন্নয়ন সাতক্ষীরার সহকারী পরিচালক মো: আব্দুল কাদের, নির্বাহী

প্রকৌশলী বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড পওর বিভাগ-২ অপূর্ব কুমার ভৌমিক, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড-১ মো: রাশিদুর রহমান, বাংলাদেশ ধান গবেষনা ইনস্টিউট’র বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার দেবশর্মা, ভয়েস অব

সাতক্ষীরার সম্পাদক – এম, কামরুজ্জামান, টিআইবি ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো. নেওয়াজুল মওলাসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, স্বচ্ছতার জন্য নাগরিক (স্বজন), ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস গ্রুপের সদস্যবৃন্দ।

মুক্ত সংলাপ অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সনাক জলবায়ু বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য মো: তৈয়েব হাসান ।
##