সাতক্ষীরায় জামায়াতের ঘাঁটি থেকে নাশকতার ছকসহ গোপন নথিপত্র উদ্ধার করেছে যৌথবাহিনী


318 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় জামায়াতের ঘাঁটি থেকে নাশকতার ছকসহ গোপন নথিপত্র উদ্ধার করেছে যৌথবাহিনী
নভেম্বর ১৯, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
সহিংসতা ও নাশকতার ছক ও  বিবিধ গোপন তথ্যসহ সাতক্ষীরায় জামায়াতের বহু  জিহাদি বই ও  নথিপত্র জব্দ করেছে আইনশৃংখলা বাহিনী। সাতক্ষীরাসহ  পার্শ্ববর্তী কয়েকটি জেলার জামায়াতের গোপন কর্মকান্ড  সাতক্ষীরার একটি গ্রাম থেকে পরিচালিত হচ্ছে বলেও এসব নথিতে পাওয়া গেছে।

সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির বৃহস্পতিবার বিকালে তার সম্মেলন কক্ষে  এক সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানিয়েছেন। এ সময় তিনি জামায়াতের কর্মপরিষদ সদস্য ও জেলা জামায়াতের সাবেক আমির আবদুল খালেক বিশ্বাসের সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ধলবাড়িয়া গ্রামের বাড়িতে বুধবার রাতে  অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে বলে জানান। সেখানে উদ্ধার হওয়া নথিপত্র ও গোপন ডায়েরি সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন তিনি।তবে অধিকতর তদন্তের স্বার্থে এসব তথ্য খোলামেলাভোবে তুলে ধরা গেল না বলে জানান পুলিশ সুপার।

পুলিশ সুপার বলেন জব্দ হওয়া নথি পত্রে জামায়াতের ২০১৫ সালের কর্ম পরিকল্পনা, খুলনা মহানগরী , খুলনা উত্তর ও দক্ষিন জেলা , যশোর , বাগেরহাটসহ বিভিন্ন জেলার জামায়াত নেতা কর্মীদের বিস্তারিত তথ্যও রয়েছে ।এছাড়া জিহাদি বই, সরকার ও সরকারি সংস্থার বিরুদ্ধে প্রতিরোধমূলক কেন্দ্রীয় নির্দেশনা, প্রশিক্ষন , চিঠিপত্র,সাংগঠনিক রিপোর্ট, খুলনা অঞ্চলের আয় ব্যয়ের হিসাব ছাড়াও ইসলামী ব্যাংক কমিউনিটি হাসাপাতালের প্রতিবেদন , ডায়েরি ও নোটবুক রয়েছে এসবের মধ্যে। এ ছাড়া ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে জামায়াত ও শিবিরের আহত ও  নিহতদের নামের তালিকা রয়েছে এর মধ্যে। সাতক্ষীরা থেকে পরিচালিত জামায়াতের গোপন  কর্মকান্ড  খুলনা বাগেরহাট ছাড়াও  যশোর,চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর,কুষ্টিয়াসহ বেশ কয়েকটি জেলায় বিস্তার লাভ করেছে।

478,0,10952,2048,795,64,1093,65,69,203,20201,0

478,0,10952,2048,795,64,1093,65,69,203,20201,0

পুলিশ সুপার জামায়াতের এসব নথিপত্র পর্যালোচনা করে বলেন ‘ ভিন্ন জেলার দলীয় নেতা কর্মীদের বেতন ভাতা এবং  মামলা পরিচালনার জন্য  অর্থ দেওয়া হয় সাতক্ষীরা থেকে’। এসব অর্থের উৎসও খুঁজে পেয়েছে পুলিশ। এ ছাড়া যেসব প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি জামায়াতকে অর্থায়ন করে এমন একটি  তালিকাও মিলেছে। জামায়াতের রুকন প্রার্থীদের ব্যক্তিগত রিপোর্ট,গোপন নোটবুক, বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্টও জব্দ করা হয়েছে বলে তিনি জানান । নথিতে প্রশিক্ষন ও প্রতিরোধের নানা তথ্য রয়েছে যা অনুসরন করার নির্দেশনা রয়েছে। নথিপত্র বিশ্লেষন করে তিনি বলেন ‘ জামায়াত ও শিবির নেতা কর্মীরা সাতক্ষীরা ছেড়ে গেছে। তাদের স্থলাভিষিক্ত হয়েছে ভিন্ন জেলার নেতারা। এসময় তারা পরিচয় লুকাতে নামও পরিবর্তন করেছে’ বলে উল্লেখ করেন তিনি ।

পুলিশ সুপার আরও বলেন ‘ সাবেক আমির আবদুল খালেক বিশ্বাসের বাড়িতে খুলনা যশোর সহ কয়েকটি এলকার লোকজন গোপন বৈঠক করছে এমন খবর পেয়ে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) এমদাদ শেখের নেতৃত্বে যৌথ বাহিনী অভিযান চালায় ।  এ সময় ১০/১৫  জন বহিরাগত নেতা দ্রুত পেছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যান।  তিনি জানান আবদুল খালেকের বিরুদ্ধে সহিংসতা ও নাশকতার চারটি মামলা রয়েছে। এসময় কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি বলে জানান পুলিশ সুপার। সংবাদ সম্মেলনে জেলা পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।