সাতক্ষীরায় ডালের আবাদ বেড়েছে


1531 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় ডালের আবাদ বেড়েছে
ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

ইব্রাহিম খলিল :
জেলায় ডাল চাষের আবাদ বেড়েছে। সাতক্ষীরার সবকটা উপজেলাতেই মুসরী, খেশারী, মাসকলাই, ছোলা, মুগ ও মটরশুটি ডালের আবাদ করা হয়েছে । তবে গত বছরের চেয়ে চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরায় ডালের আবাদ প্রায় ২০ শতাংশ বেড়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর।

সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর থেকে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরার সাটি উপজেলাতে ৪ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের ডালের আবাদ করা হয়েছে। এরমধ্যে মুসরী ডাল ১ হাজার ২০০ হেক্টর, খেশারী ডাল ২ হাজার ৯ হাজার হেক্টর, মাসকলাই ডাল ১২০ হেক্টর, ছোলা ৯০ হেক্টর, মুগ ডাল ১৩০ হেক্টর ও মটর শুটি ৬০ হেক্টর। যা গত বারের তুলনায় প্রায় ২০ শতাংশ বেশি বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

 

indexxzxzA
সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পারকুখরালি গ্রামের কৃষক কার্তিক চন্দ্র দাশ জানান, তিনি ৪ বিঘা জমিতে স্থানীয় জাতের মুসরী ও খেশারী ডালের আবাদ করেছেন। প্রতি বছরই অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি ডাল চাষ করেন। তিনি বলেন, গত মৌসুমে ৩ বিঘা জমিতে ডাল উৎপাদন করে ৪০ হাজার টাকা লাভ হয়েছিলে। এবার ৪ বিঘাতে উৎপাদন খরচ বাদে অন্তত ৬০ হাজার টাকা হবে বলে আশা করছেন তিনি এই কৃষক।

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার কেড়ালকাতা ইউনিয়য়ের কোমরপুর গ্রামের কৃষক রফিকুল ইসলাম জানান, চলতি মৌসুমে ৩ বিঘা জমিতে দেশী জাতের মুসরী ডালের আবাদ করেছেন। গত বছর ২ বিঘা জমিতে ডাল চাষ করে উৎপাদন খরচ উঠিয়েও ৩৫ হাজার টাকা লাভ হয় তার। এবার আরো ১ বিঘা বেশি করে ৩ বিঘা জমিতে প্রায় ১৬ থেকে ২০ মন ডাল উৎপাদন হবে বলে আশা করছেন এই কৃষক। তিনি আশা করছেন এবার তার তিন বিঘা জমির ডাল উৎপাদন করে ৫০ হাজার টাকা লাভ হবে। রফিকুল ইসলাম  বলেন, তার গ্রামের অধিকাংশ কৃষকই কম বেশি বিভিন্ন জাতের ডাল চাষ করেন। তিনি বলেন, প্রতি বিঘা জমিতে ডালের আবাদে ১ হাজার ৫০০ থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হয়। কম খরচে সল্প সময়ের ফসল হিসেবে কৃষকরা ডাল চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছেন।