সাতক্ষীরায় ড্রাগন চাষে সাফল্য


501 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় ড্রাগন চাষে সাফল্য
অক্টোবর ১৭, ২০১৮ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

বিদেশি ফল ড্রাগন চাষ করে প্রথম বছরেই সফলতার দেখা পেয়েছেন সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণুপুরের মুকুন্দপুর গ্রামের গহর আলী মোড়লের পুত্র রুহুল আমিন মোড়ল।

উচ্চ ফলনশীল ও উচ্চমূল্য ফসলজাত প্রচলন প্রদর্শনীর আওতায় পিকেএসএফ এর অর্থায়নে এনজিএফ এর সহযোগিতায় ৮শতাংশ জমিতে বাউ ড্রাগন ফল-২ (লাল) জাতের চাষ শুরু করেন কৃষক রুহুল আমিন।

কৃষক রুহুল আমিন জানান,সহজ পরিচর্যা ও চাষ পদ্ধতির মাধ্যমে ১৫ মাসের মধ্যে মাত্র ২০টি গাছ থেকে ১৫০-১৭৫টি ফল পেয়েছি। যার গড় ওজন ৩০০ গ্রাম, পেয়েছেন উচ্চ বাজার মূল্যও।
সহজ পরিচর্যা ও চাষ পদ্ধতির উচ্চ মূল্যর ভিন দেশি ১.৫ থেকে ২.৫মিটার লম্ব ক্যাকটাস জাতীয় এ ফলটি নিয়ে এখন স্বপ্ন দেখছেন তিনি।
সে আরো ৩৩ শতাংশ জমি এই ফল চাষের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। পরিকল্পনা রয়েছে বৃহৎ পরিসরে চাষাবাদের।

তার দেখাদেখি এলাকার অনেকেই এখন আগ্রহী ড্রাগন চাষে। বাংলাদেশে সর্বত্র পানি জমে না এমন উচ্চ যেকোন মাটিতে চাষ যোগ্য রপ্তানী ও বাণিজ্যিক সম্ভাবনাময় এ ফলটি ২০০৭সালে থাইল্যান্ড থেকে প্রথম বাংলাদেশে আমদানী করা হলেও এখন পর্যন্ত এর চাষাবাদ ব্যাপক সম্প্রসারণ হয়নি।

বানিজ্যিক ভিত্তিতে সফল ভাবে চাষ করার জন্য বাউ ড্রাগন ফল-১ (সাদা), বাউ ড্রাগন ফল-২ (লাল) এছাড়াও হলুদ ও কালচে লাল জাত রয়েছে।

বৎসরের যে কোন সময়ে চারা রোপণ করা যেতে পারে তবে চারা রোপণের মাস খানেক পূর্বে গর্ত তৈরী করে প্রয়োজনী জৈব রাসায়নিক সার দেওয়া উত্তম।

এটি দ্রুত বর্ধনশীল এক বছরের মধ্যেই ৩০টি পর্যন্ত শাখা তৈরী করতে পারে। রোগ বালাই পোকা মাকড়ের আক্রমণ নেই বললেই চলে। ১২ থেকে ১৮মাস বয়সের ১টি গাছে ৫ থেকে ২০টি এবং পূর্ণ বয়স্ক গাছে বছরে ২৫-১০০টি ফল পাওয়া যায়। গাছের পূর্ণতা পেতে ৩ বছর সময় লাগে।
অপর সম্ভাবনাময় এ ফলটি চাষাবাদ সম্প্রসারিত হলে কৃষককুল লাভবান হবেন বলে আশা করছেন সচেতন মহল।