সাতক্ষীরায় তালাক দেয়া স্ত্রীর মিথ্যে মামলা থেকে অব্যহতি পেতে সংবাদ সম্মেলন


659 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় তালাক দেয়া স্ত্রীর মিথ্যে মামলা থেকে অব্যহতি পেতে সংবাদ সম্মেলন
অক্টোবর ২, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ::
সাতক্ষীরায় তালাক দেওয়া স্ত্রী কর্তৃক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদ জানিয়েছেন সদর উপজেলার ধুলিহর গ্রামের মৃত রজব আলী থান্দারের ছেলে মহিদ থান্দার। মিথ্যে মামলার দায় থেকে অব্যহতির দাবি করে গতকাল সোমবার সাতক্ষীরা প্রসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই প্রতিবাদ জানান।
লিখিত বক্তব্যে মহিদ থান্দার বলেন, বিগত প্রায় ১৭ বছর পূর্বে আশাশুনি উপজেলার বেউলা গ্রামের মুনতাজ আলীর মেয়ে মনিরা খাতুনের সাথে তার বিয়ে হয়। তাদের একটি ছেলে ও একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। দু’টি সন্তান হওয়ার পর থেকে আমার স্ত্রী মনিরা সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করতে থাকে। কিন্তু সন্তানের দিকে তাকিয়ে আমি সবকিছু মেনে যাচ্ছিলাম। ইতোমধ্যে মনিরা তার বাবার বাড়ির পাশে জনৈক ব্যক্তির সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। প্রতিবাদ করলে মনিরা আমাকে নারী নির্যাতন মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানি করার হুমকি দিতে থাকে। মিথ্যা মামলায় হয়রানির ভয়ে আমি নিরবে তার সকল অপকর্ম সহ্য করে যাচ্ছিলাম। বিষয়টি নিয়ে কয়েকবার শালিসও হয়। কিন্তু তাতেও তার সুবুদ্ধি উদয় হয়নি। একপর্যায়ে ২০১৬ সালের দিকে আমার ঘর থেকে নগদ টাকাসহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ও গহনা নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যায়। কিছুদিন পর সে ফিরে আসার প্রস্তাব দিলে ২০১৬ সালের ১৩ নভেম্বর স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে অশান্তি করবে না, শান্তিতে ঘর-সংসার করবে মর্মে এক শালিস নামায় স্বাক্ষর করে মনিরা।
তিনি বলেন, সব কিছু জেনেও দু’টি সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে আমি তাকে নিয়ে ঘর সংসার করার চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু কিছুদিন যেতেই সামান্য বিষয়ে নিয়ে অশান্তি সৃষ্টি করে আমার সাথে সংসার করবে না বলে টাকা পায়সা নিয়ে রাতের আধারে বাবার বাড়ি চলে যায় মনিরা। সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে মনিরার সাথে আর সংসার করা যাবে না ভেবে গত ৬ আগস্ট তাকে তালাক দেই। তালাক পাওয়ার পর এবং প্রেমিক তাকে বিয়ে করবে না বুঝতে পেরে মনিরা গত ৯ আগষ্ট সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতে আমার নামে একটি মিথ্যা হয়রানি মূলক যৌতুকের মামলা দায়ের করে। এছাড়া গত ২৮ সেপ্টেম্বর আশাশুনি রিপোর্টার্স ক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলন করে মিনরা আমাকে মাদক সেবী ও যৌতুক লোভী উল্লেখ করে আমি ৫ লক্ষ টাকার যৌতুক দাবি করেছি বলে জানায়। অথচ মামলায় উল্লে¬খ করা হয়েছে ১ লক্ষ টাকা।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমার সদ্য তালাক দেওয়া স্ত্রী মনিরা খাতুন তার প্রেমিকের কাছে স্থান না পেয়ে কৌশলে আমার কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য আদালতে এধরনের মিথ্যে মামলা ও পত্রিকায় মিথ্যে সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে। তিনি উক্ত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মিথ্যে মামলার দায় থেকে অব্যহতি পেতে আদালত ও সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।