সাতক্ষীরায় দুর্যোগ ঝুকি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ৩ দিন ব্যাপী কর্মশালার সূচনা


417 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় দুর্যোগ ঝুকি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ৩ দিন ব্যাপী কর্মশালার সূচনা
মে ২৮, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

॥ বিশেষ প্রতিনিধি ॥
———————————-
জলবায়ু পরিবর্তনের প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের দক্ষিণ উপকূলে দুর্যোগ ছোবল মারছে বারবার। ঘুর্ণিঝড় বন্যা জলোচ্ছাস নদী ভাঙ্গনসহ নানা ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ছাড়াও এর সাথে যুক্ত হয়েছে মনুষ্যসৃষ্ট দুর্যোগ। এসব দুর্যোগকে কিভাবে মোকাবেলা করা যায় তার কৌশল রপ্ত করা এখন জরুরি হয়ে পড়েছে।
সোমবার সাতক্ষীরায় এ বিষয়ে একটি কর্মশালায় বক্তারা বলেছেন দুর্র্যোগ পূর্বকালে দুর্যোগকালে এবং দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে করনীয় কী এবং সে বিষয়ে দক্ষতা ও জনগোষ্ঠীর সক্ষমতা অর্জন প্রয়োজন।
এমপাওয়ারিং লোকাল এন্ড ন্যাশনাল হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাকটরস (এলনা) প্রকল্পের আওতায় এই কর্মশালার আয়োজন করে বেসরকারি সংস্থা ক্রিসেন্ট , আশ্রয়ন ফাউন্ডেশন ও অক্সফাম। ‘ওরিয়েন্টেশন অন ডিসাসটার রিস্ক ম্যানেজমেন্ট , ন্যাশনাল এন্ড ইন্টারন্যাশনাল পলিসিস,লঅস উইথ এলএনএইচএএস অ্যাট সাতক্ষীরা ডিস্ট্রিক্ট ইন হিউম্যানিটারিয়ান এসপেক্টস’ শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী। ক্রিসেন্ট পরিচালক আবু জাফর সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন আশ্রয়ন ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী মনিরুজ্জামান প্রিন্স , সিভিল ডিফেন্স সাতক্ষীরার উপপরিচালক মো. নজরুল ইসলাম ও রঘুজিত গুহ। আশ্রয়ন ফাউন্ডেশন কর্মকর্তা বনশ্রী ভান্ডারি এতে সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন। কর্মশালায় সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা, বিভিন্ন পেশাজীবী, শিক্ষক এবং সংবাদকর্মীরা অংশ নেন।
সাতক্ষীরা জেলা পরিষদ মিলনায়তনে তিনদিনের এই কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন দুর্যোগ মোকাবেলায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির সাথে সাথে চাই তাদের সক্ষমতা অর্জন। দেশের দক্ষিন পশ্চিম উপকূলের মানুষ সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ন অবস্থায় রয়েছেন জানিয়ে তারা আরও বলেন এজন্য সরকারি বেসরকারি সংস্থাসমূহ এবং জনপ্রতিনিধিদের অনেক দায়িত্ব রয়েছে।