সাতক্ষীরায় নানা আয়োজনে পালিত হলো নবান্ন উৎসব ও পিঠা মেলা


450 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় নানা আয়োজনে পালিত হলো নবান্ন উৎসব ও পিঠা মেলা
নভেম্বর ১৬, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আব্দুর রহমান :
নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে সাতক্ষীরায় পালিত হয়েছে নবান্ন উৎসব। রোববার সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জেলা শিল্পকলা একাডেমি, শিশু একাডেমি ও সদর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত এ উৎসবে স্থানীয় সামাজিক ,সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিবর্গসহ বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পিঠা উৎসবে অংশ নেয়।
কবি জীবনানন্দ দাশ লিখেছেন, আবার আসিব ফিরে ধান সিঁড়িটির তীরে এই বাংলায়/হয়তো মানুষ নয় হয়তো শঙ্খচিল শালিখের বেশে;/হয়তো ভোরের কাক হয়ে এই কার্তিকের নবান্নের দেশে। কবির এই বাংলায় আজ সেই দিন। অগ্রহায়ণ, নবান্ন উৎসব।
শস্যভিত্তিক এই লোক উৎসবে আজ মেতে উঠবে পুরো বাংলা। নতুন ফসল ঘরে তোলা উপলক্ষে বাংলার কৃষকরা এই উৎসবটি পালন করে থাকে। বাড়ির আঙিনাগুলো আজ নতুন ধানের মৌ মৌ গন্ধে ভরে উঠবে।
নতুন ধানের চাল দিয়ে তেরি হবে পিঠা, পায়েস, ক্ষীরসহ হরেক ধরনের খাবার। নবান্ন উৎসবের আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান।
প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর ২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এসময়  উৎসব মুখর পরিবেশে বাঙালীর ঐতিহ্যের নবান্ন উৎসব ১৪২২ বঙ্গাব্দ উপলক্ষে সাতক্ষীরা জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ, সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান ও পিঠা উৎসব পালিত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ প্রশাসক মুনসুর আহমেদ, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ আব্দুল সাদী।
আলোচনা সভা শেষে আমন্ত্রিত সকল অতিথিদের মাঝে পিঠা প্রদান করা হয়। এসময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নাসরিন খান লিপি, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাহাদাৎ হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আবু জাফর মোঃ আসিফ ইকবাল, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সদস্য মুশফিকুর রহমান মিল্টন, মাসিক সাহিত্যপাতার সম্পাদক আব্দুর রহমান, জেলা যুব মহিলালীগের সাধারণ সম্পাদিকা সাবিহা হোসেন, আবু আব্দুল্লাহ (আবু সাক্কার), কষ্ঠশিল্পী ও শিক্ষক মঞ্জুরুল হক, শহিদুল ইসলাম, আবৃত্তিকার মনিরুজ্জামান ছট্রু প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে উৎসবে সঙ্গীত, নৃত্য, আবৃত্তি ও বিভিন্ন রকম পিঠার আয়োজন করা হয়।