সাতক্ষীরায় নাশকতার মামলা করার কারণে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে কক্সবাজার থানায় মামলা !


373 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় নাশকতার মামলা করার কারণে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে  কক্সবাজার থানায় মামলা !
অক্টোবর ১৯, ২০১৫ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় এবং নাশকতার মামলা করায় প্রতিপক্ষরা সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার পুষ্পকাটি, বহেরা ও পারুলিয়া গ্রামের আ’লীগ নেতাসহ বেশ কয়েক জনের নামে কক্সবাজারের টেকনাফ থানায় একটি মামলা করেছে। সোমবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন দেবহাটার পুষ্পকাটি গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে জয়নাল আবেদিন।

জয়নাল আবেদিন বলেন, এলাকার জামায়াত-বিএনপি’র ক্যাডাররা সরকার পতনের লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরনের নাশকতা সৃষ্টি করতে থাকায় তার পিতা শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ২৭ জন চিহিৃত ক্যাডারের নামে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় আদালত থেকে ওয়ারেন্ট হলে পুলিশ আসামীদের কয়েকজনকে গ্রেফতার করে। পরে তারা জামিনে ছাড়া পেয়ে এলাকায় এসে তার পিতাসহ পরিবারের সদস্যদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করার চেষ্টা করতে থাকে। প্রতিক্ষরা তার পিতা কুলিয়া ইউপি’র ৩ নং ওয়ার্ড কৃষকলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম (৬০), ১নং ওয়ার্ড আ’ লীগের সভাপতি বহেরা গ্রামের মোসলেম আলী মোল্যা (৫৭),  আ’লীগ সদস্য পুষ্পকাটি গ্রামের আলহাজ্ব এন্তাজ আলী সরদার (৬৭), পারুলিয়া গ্রামের অরুপ বিশ্বাস ও পুষ্পকাটি গ্রামের রউফ মল্লিকসহ এলাকার বেশ কয়েকজনের নামে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানায় একটি মিথ্যে মামলা করেছে। মামলা নং জিআর ১৯২/১৫, তাং ২০/০৫/১৫। গত ৯ অক্টোবর তারিখে ১০৩৪(১১)নং স্মারকে কক্সবাজার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে একটি ওয়ারেন্ট দেবহাটা থানায় আসে। পুলিশ ইতিমধ্যে অরুপ বিশ্বাস ও রউফ মল্লিককে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। বাকীদের গ্রেফতারে বার বার অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।
তিনি বলেন, সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রকারি জামায়াত-বিএনপি’র ক্যাডারদের বিরুদ্ধে মামলা করায় তার বৃদ্ধ পিতাসহ এলাকার বেশ কয়েকজন নিরীহ মানুষ মিথ্যে মামলার আসামী হয়ে গ্রেফতারের ভয়ে এখন বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। জীবনে কখনো কক্সবাজারে না গিয়েও টেকনাফ থানার একটি মামলার আসামী হওয়ায় সকেল বিস্মিত হয়েছেন। তিনি এই ধরনের ষড়যন্ত্র ও হয়রানি মূলক মিথ্যে মামলার দায় থেকে দেবহাটার সকল আসামীকে অব্যহতি প্রদান ও আইন আদালতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পেতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।