সাতক্ষীরায় পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষার দাবিতে এক ব্যক্তির সংবাদ সম্মেলন


383 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষার দাবিতে এক ব্যক্তির সংবাদ সম্মেলন
জুন ৩, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::
সাতক্ষীরায় এক ব্যক্তির পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের জন্য ধর্মীয় অনুভূতিকে ব্যবহার করার জন্য কৌশলে ওই সম্পত্তিতে প্রতিমা স্থাপনের অভিযোগ উঠেছে। রবিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার অবাদ চন্ডিপুর গ্রামের মৃত শেখ সৈয়দ আলির ছেলে শেখ শাহাজান হোসেন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, অবাদ চন্ডিপুর মৌজার এস,এ ৫২১ ও খারিজ ৫২১/১ খতিয়ানে, ডিপি ১৬৬৯ ও ১৯৫৪ খতিয়ানের সাবেক ১২১৩,১২১৪,১২১৫ ও ১২১৬ দাগে এবং হাল ৩৪২১ দাগে মোট ১ একর ৪৫ শতক জমির মধ্যে ১ একর ১৫ শতক জমিতে চিংড়ি ঘের রয়েছে। বাকি জমিতে বসতবাড়ি ও ঘর। উক্ত সম্পত্তি পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে দীর্ঘ ৬৭ বছর ধরে শান্তিপূর্নভাবে ভোগ দখলে আছি। কিন্তু ২০১৭ সালের শেষের দিকে ওই ্এলাকার ভীম দেব মন্ডল, তার দুই ছেলে দেবাশীষ মন্ডল ও পঞ্চানন মন্ডল, খালেক গাজী, মনস্ মন্ডল, কৃষ্ণপদ মন্ডল, নবীন মন্ডল এবং তার স্ত্রী মনি দাসি স্থানীয় একটি কুচক্রি মহলের সহযোগিতায় অবৈধভাবে আমার ওই সম্পত্তি দখলের চেষ্টা করে। এঘটনায় ৭ ডিসেম্বর থানায় একটি জিডি করি। এর কয়েকদিন পর গত ১৩ জানুয়ারী উল্লেখিতরা আমার ঘেরে বেড়িবাঁধ কেটে তাদের ঘেরের সাথে একাকার করে দেয়। এরপর ধর্মীয় অনুভূতিকে ব্যবহার করার জন্য দেবাশিষ গংরা কৌশলে আমার ওই পৈত্রিক সম্পত্তিতে একটি প্রতিমা স্থাপন করে। অথচ এর আগে সংখ্যালঘুদের একটি মন্দির প্রতিষ্ঠার জন্য আমার পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে ১৫ শতক জমি আমি দান করেছি।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, এবিষয়ে জনপ্রতিনিধি ও ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের মৌখিক ও লিখিতভাবে জানিয়ে কোন ফল না পেয়ে উল্লেখিতদের বিরুদ্ধে আদালতে ১৪৫ ধারার একটি মামলা দায়ের করি। শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার স্বার্থে ২য় পক্ষকে উক্ত জমিতে বারিত করার নির্দেশ দেওয়া হয় এবং বিষয়টি তদন্তের জন্য সংশ্লিষ্ঠ সহকারি কমিশনার ভূমিকে নির্দেশ দেয়া হয়। তদন্তে আমার পক্ষে রির্পোট দেয়া হয়। এরপরও তারা আদালতের নির্দেশ উপক্ষো করে তারা আমার ঘের দখলের পায়তারা করছে। একই সাথে ওই অস্থায়ী প্রতিমা ভাংচুর করে আমার নামে মিথ্যে মামলা দিবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এছাড়া দেবাশীষ গত ২৭ মে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে একটি মিথ্যে সংবাদ সম্মেলন করেছে। ধর্মীয় সংখ্যালঘু ও প্রতিমা ভাংচুরের মিথ্যে দোহাই দিয়ে সে এলাকার হিন্দু- মুসলিমের মধ্যে সামপ্রদায়িক সম্প্রতি নষ্ট করে দাঙ্গা সৃষ্টির পায়তারা করছে। তিনি ওই মিথ্যে সংবাদ সম্মেলনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। তিনি দেবাশীষ গংদের হাত থেকে পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষা ও পরিবারের সকল সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তার দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী, ধর্ম মন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

##