সাতক্ষীরায় “প্রাইমারী শিক্ষক পদে” চাকরি পাইয়ে দেওয়া চক্র তৎপর


509 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় “প্রাইমারী শিক্ষক পদে” চাকরি পাইয়ে দেওয়া চক্র তৎপর
মে ২৩, ২০১৯ ফটো গ্যালারি শিক্ষা সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

মনজুর কাদীর :
আগামী কাল শুক্রবার সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা। আর এই শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে সাতক্ষীরায় “প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরি পাইয়ে দেওয়া চক্র” বেশ তৎপর। ইতোমধ্যে ঢাকা থেকে প্রতারক চক্রটি সাতক্ষীরায় পৌছেগেছে বলে জানাগেছে। তারা বিভিন্ন প্রার্থীর কাছে গিলে বলছে ‘আমরা পরীক্ষা শুরু হওয়ার এক ঘন্টা আগেই প্রশ্নের ও উত্তর বলে দেবো। আর এ জন্য ৮ লাখ টাকা দিতে হবে। তবে এখন দুই লাখ টাকা দিলে প্রশ্ন এবং উত্তরপত্র পাওয়া যাবে। বাকী টাকা পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার পরে দিলে চলবে ’।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন প্রার্থী ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানায়, গতকাল বুধবার সাতক্ষীরা জেলা শহরের উত্তর কাটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি তাকে ফোন করে বলেন ‘আমরা পরীক্ষা শুরু হওয়ার এক ঘন্টা আগেই প্রশ্নের উত্তর বলে দেবো। আর এ জন্য ৮ লাখ টাকা দিতে হবে। তবে এখন দুই লাখ টাকা দিলে প্রশ্ন এবং উত্তরপত্র পাওয়া যাবে । বাকী টাকা পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার পর দিলে চলবে ’। ফখরুল নামের এক শিক্ষক বিভিন্ন প্রার্থীর সাথে কথা বলেছেন বলে জানাগেছে।

তথ্যানুসন্ধানে জানাগেছে, চক্রটি গত দুই দিন আগে ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা শহরে আসে। তারা জেলার বিভিন্ন জায়গাতে এজেন্ট নিয়োগ করে এভাবে প্রার্থীদের সাথে চুক্তি করে প্রতারণার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। পরীক্ষা কেন্দ্রে যারা ডিউটিতে থাকবেন তাদের মধ্যে চক্রটি মিশেগেছে বলেও সূত্র জানিয়েছে। অর্থাৎ যারা পরীক্ষা কেন্দ্রে ডিউটিতে থাকবেন তাদের কেউ কেউ এই প্রতারক চক্রের সাথে জড়িত ।

সূত্র জানায়, সাতক্ষীরায় ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ এক নেতার ছেলে ( যিনি ঢাকা প্রবাসী ) এসব সমন্বয় করতে ঢাকা থেকে কয়েক দিন আগে সাতক্ষীরায় এসে অবস্থান করছেন। এজেন্ট নিয়োগ থেকে শুরু করে তিনিই সব কিছুর সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করছেন বলে সূত্র জানায়।

গত কয়েক বছর ধরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের আগে সাতক্ষীরায় এ ধরনের একটি প্রতারক চক্র এসে হাজির হয়। গত বছর সর্বশেষ যে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা হয়েছে সেখানেও একই ধরনের অভিযোগ উঠেছিলো। সর্বশেষ নিয়োগ পরীক্ষায় ইলেকট্রিক ডিভাইজসহ পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে একজন হাতেনাতে গ্রেফতারও হয়। তবে স্থানীয় প্রশাসনের কঠোর নজরদারীর কারণে প্রতারক চক্রটি বেশ বাঁধাগ্রস্ত হয়।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, র‌্যাবসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সাতক্ষীরার নাগরিক সমাজ। তারা আশা প্রকাশ করেছেন প্রতারক ওই চক্রটির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে বলেন, আজ বৃহস্পতিবার বিকালে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা নিয়ে সভা করে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পরীক্ষার্থীরা যাতে কোন ধরনের প্রতারণার শিকার না হয় সে ব্যাপারে সকলকে সতর্ক থাকার জন্য তিনি বলেছেন। তিনি বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রে কোন ধরনের ডিভাইজ নিয়ে প্রবেশ করা যাবে না। ডিভাইজ পেলেই তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। যারা প্রতারনার আশ্রয় নিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে তাদের ব্যাপারে সতর্ক দৃষ্টি রাখা হচ্ছে।