সাতক্ষীরায় বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সাদিক ‘ভয়ঙ্কর’


1749 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সাদিক ‘ভয়ঙ্কর’
ডিসেম্বর ৪, ২০১৯ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

‌‘ সুন্দরী নারীদের সাথে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকী দিয়ে সমাজের উচ্চ পর্যায়ের মানুষকে জিম্মি করাই ছিলো সাদিক বাহিনীর মূল কাজ ’

বিশেষ প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিক। ভয়ঙ্কর সব কর্মকান্ডের কারনে গত ৩ ডিসেম্বর ছাত্রলীগ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তার বহিষ্কারের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর সাতক্ষীরার সর্বত্র স্বস্তির নি:শ্বাস ফিরে এসেছে। তার নেতৃত্বে গড়ে উঠেছিলো অস্ত্রধারি সন্ত্রাসী বাহিনী। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বলছে ‘দাপটে এই সন্ত্রাসী কতোটা ভয়ঙ্কর হতে পারে কেউ সহজে তা ধারনা করতে পারবেন না’।

সাদিক বাহিনীর দুই সন্ত্রাসী দ্বীপ ও সাইফুল গত ২৯ নভেম্বর রাতে পুলিশের সাথে ক্রসফায়ারে নিহত হয়। এর একদিন পর গত ১ ডিসেম্বর দুপুরে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার এক প্রেস ব্রিফিং- এর আয়োজন করে। ওই প্রেসব্রিফিং-এ সাদিক বাহিনীর ভয়ঙ্কর সব কর্মকান্ডের কথা উঠে আসে। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান জানায়, সাদিক ও তার বাহিনীর সদস্যরা সাতক্ষীরার প্রশাসনিক কর্মকর্তা, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, আইনজীবী, চিকিৎসক থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষকে কৌশলে জিম্মি করে তাদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা চাঁদা আদায় করেছে।

সূত্র জানায়, একাধিক সুন্দরী নারীকে ব্যবহার করতো সাদিক ও তার বাহিনী। কৌশলে ওই সুন্দরী নারীদের সাথে ছবি তুলে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকী দিয়ে সমাজের উচ্চ পর্যায়ের সম্মানিত মানুষকে জিম্মি করাই ছিলো সাদিক ও তার বাহিনীর মূল কাজ। আর এ কাজে ব্যবহার করা হতো অবৈধ কয়েকটি অস্ত্র। মাঝে মাঝে এসব অস্ত্র জেলার বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে ভাড়া দেয়া হতো। জমি দখল থেকে শুরু করে বিভিন্ন দখল দারিত্বই ছিলো সাদিকের কাজ। যার তার গুলি করতে পিছপা হতো না এই বাহিনী।

এসব ঘটনার বেশকিছু প্রমান আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে ইতোমধ্যে পৌছে গেছে। এতো খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে, সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিককে সংগঠনের গঠনতন্ত্র পরিপন্থি কাজের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় তাকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে। একই সাথে সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের কমিটি মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় তা বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যকরী সংসদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভুট্টাচার্য স্বাক্ষরিত গত ৩ ডিসেম্বর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। একই সাথে নতুন কমিটি গঠনের লক্ষে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আগ্রহীদের আগামী ১৮ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখের মধ্যে সংগঠনের দপ্তর সেল বরাবর জীবনবৃত্তান্ত পাঠানোর জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যকরী সংসদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভুট্টাচার্য বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ৩১ অক্টোবর সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে বিকাশের ২৬ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ( সদ্য বহিস্কৃত ) সাদিকের দুই সহযোগী সাইফুল ও দ্বীপ সম্প্রতি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়। এ ঘটনায় সাদিককে আসামী করে সাতক্ষীরা সদর থানায় অস্ত্র আইনে মামলা হয়েছে।

এরপর থেকে ছিনতাইয়ের ২২ লক্ষ টাকা ও অবৈধ অস্ত্র নিয়ে পালিয়ে যায় সাদিক। তাকে আটকের জন্য পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

এদিকে, যতই দিন যাচ্ছে ততই সাদিক ও তার সহযোগিদের অপরাধ জগত সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য বেরিয়ে আসছে। সাদিকের ভয়ঙ্কর সব অপকর্ম একের পর এক বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে। পুলিশ সাদিকের এসব অপকর্মের ফিরিস্তি খতিয়ে দেখতে মাঠে নেমেছে।

#