সাতক্ষীরায় বাগদা রেনুর দাম বৃদ্ধি, দিশেহারা চিংড়ী চাষী


1225 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় বাগদা রেনুর দাম বৃদ্ধি, দিশেহারা চিংড়ী চাষী
মার্চ ৩, ২০২০ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

মিঠু বরকন্দাজ ::

বাংলাদেশের সাদা সোনা নাম খ্যাত বাগদা চিংড়ী। আর এই বাগদা চিংড়ীর রেনু অন্যান্য বছরের তুলনায় চলতি মৌসুমে দাম ৫ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ায় দিশেহারা পড়েছে চিংড়ী চাষীরা। সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় এখনও পর্যন্ত ৩০% ছোট বড় চিংড়ী চাষী ঘেরে চিংড়ী পোনা অবমুক্ত করতে পারেনি। ফলে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে এবারের চিংড়ী চাষ। শ্যামনগর উপজেলায় প্রায় ২২ হাজার হেক্টর জমিতে চিংড়ী চাষ হয়ে থাকে। যার ৮০ ভাগ রেনু পোনা দেশের কক্সবাজার থেকে আমদানি করা হয়। বাঁকি ২০ ভাগ স্থানীয় হ্যাচারী গুলো থেকে উৎপাদন করা হয়। জানা যাচ্ছে, কক্সবাজার থেকে আমদানীকৃত পোনার হ্যাচারী গুলো সমাঝোতা করে মাসে মাত্র ৫টি করে হ্যাচারীর পোনা চালু রেখেচে। সেকারনে চিংড়ী পোনার দাম আকাশ ছোয়া বেড়েছে। অন্যান্য বছর এসয়ে কক্সবাজার থেকে আসা রেনু পোনার ৫-৬ হাজারের প্রতি পলি বিক্রি হতো ১হাজার থেকে ১১শ টাকা। এবার তা বিক্রি হচ্ছে ৫-৬ হাজার টাকা। আর স্থানীয় হাচারী যেমন নওয়াবেঁকী, রেডিয়েন্ট, ওয়ার্ছি , নিউ যমুনা ও ওশান হ্যাচারী এখনও পর্যন্ত পোনা উৎপাদন করতে পারেনি। উপজেলার ছোট বড় চিংড়ী ঘের মালিকরা জানায়, ফেব্রুয়ারী মাসের মধ্যে ঘেরে চিংড়ী পোনা অবমুক্ত না করা গেলে চিংড়ী চাষে সফালতা আসেনা। আর এর পরেই তো গ্রীষ্ম মৌসুম পড়ে যাবে। প্রচন্ড তাপে চিংড়ী মাছ মরে যায়। বর্তমানে পোনার চড়া দর থাকায় এখনও পর্যন্ত ঘেরে পোনা ছাড়তে পারিনি। তারা আরও বলেন, সময় মত পোনা ছাড়তে না পারায় এবার নিশ্চিত, চিংড়ী চাষে লোকশান হবে।

#