সাতক্ষীরায় বাবার বসত ভিটা থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


377 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় বাবার বসত ভিটা থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
অক্টোবর ৬, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
সাতক্ষীরায় আপন ভাই বোনেরা মিলে বাবার পৈত্রিক ভিটা থেকে অন্য এক ভাইকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন সদর উপজেলার লাবসা গ্রামের মৃত কাজী রহমতুল  হকের ছেলে  কাজী মোঃ শফিউল হক।

সংবাদ সম্মেলনে কাজী মোঃ শফিউল হক বলেন, তারা ৮ ভাই ও ৫ বোন। ভাইদের মধ্যে তিনি ৭ নম্বর। আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে তিনি দীর্ঘদিন বাড়ির বাইরে ছিলেন। তার অন্যন্য ভাইয়েরাও বাইরে থাকে। এদিকে বোনদের বিয়ে হয়ে যাওয়ায় বাড়িতে বাবা ও মা ছাড়া আর কেউ ছিল না।
কিন্তু ২০১২ সালে মা মারা যাওয়ার পর পরিবারের কথা ভেবে বাবা তাকে বাড়িতে নিয়ে আসেন এবং  থাকার জন্য একটি ঘর তৈরির জায়গা নির্ধারণ করে দেন। কিন্তু আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে তিনি বাবার দেয়া জায়গায় ঘর নির্মাণ সম্পন্ন করতে পারিনি। ২০১৪ সালে তার বাবা মারা যাওয়ার পর অন্য ভাই ও বোনেরা মিলে তাকে বাবার সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদ করার পায়তারা শুরু করে।

তারা বিভিন্ন সময় তাকে হুমকি ধামকি দিতে থাকে। এক পর্যায়ে ভাইয়েরা তার মানসিক রোগী স্ত্রী ও সন্তানকে ফুসলিয়া তাদের কাছে নিয়ে যায় এবং পরে কোর্টের মাধ্যমে তাদের তিনি ফিরিয়ে আনেন।
তিনি বলেন, বাবা মৃত্যুর আগে চেয়ারম্যান বরাবর একটি আবেদন লিখে যান যাতে বাবার ভিটায় বসবাস করতে তার কোন প্রকার সমস্যা না হয়। কিন্তু ভাই ও বোনেরা মিলে বাবার তাকে ভিটে ছাড়া করার জন্য বারবার হয়রানি করছে।

এরই ধারবাহিকতায় মঙ্গলবার সকালে তার সেজ ভাই কাজী নজিবুল হক হটাৎ তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ২৪ ঘন্টার মধ্যে বাবার ঘর ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি দেয়। ফলে বর্তমানে তিনি পরিবারের সদস্যদের নিয়ে চরম নিরাপত্তহীনতায় ভুগছেন।  তিনি যাতে পরিবার নিয়ে  পিতার বাড়িতে বসবাস করতে পারেন সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।