সাতক্ষীরায় বিনাধানের ফসল কর্তন ও মাঠ দিবস


643 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় বিনাধানের ফসল কর্তন ও মাঠ দিবস
নভেম্বর ৩, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::
‘শেখ হাসিনার নির্দেশ জলবায়ু সহিষ্ণু বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে ধারনে করে বিনা উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল ও স্বল্প জীবনকাল সম্পন্ন আমন ধানের জাত বিনাধান-৭ ও বিনাধান-১৭ এর ফসল কর্তন ও মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (০৩ নভেম্বর) বিকালে সদরের লাবসা ইউনিয়নের উত্তর দেবনগরে বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উপকেন্দ্রের আয়োজনে এবং জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাষ্ট ফান্ড (সিসিটিএফ)’র সহযোগিতায় এ মাঠ দিবস ও ফসল কর্তন অনুষ্ঠিত হয়।
ফসল কর্তন ও মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট ময়মনসিংহ মহাপরিচালক ড. বীরেশ কুমার গোস্বামী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে হিসেবে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব দীপক কান্তি পাল।
এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগ বিনা সিএসও ড. মির্জা মোফাজ্জল ইসলাম, উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগ বিনা সিএসও ড. মো. আব্দুল মালেক, সিসিটিএ প্রকল্প পরিচালক ড. মো. শহিদুল ইসলাম, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কোষ বিনা এসএসও এবং ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড. মো. কামরুজ্জামান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সাতক্ষীরা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মো. নুরুল ইসলাম, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. আমজাদ হোসেন, কৃষি গবেষণা কেন্দ্র সাতক্ষীরা বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা অলি আহম্মেদ ফকির প্রমুখ।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উপকেন্দ্র সাতক্ষীরার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আল আরাফাত তপু, বিনা উপকেন্দ্র সাতক্ষীরার ফার্ম ম্যানেজার মো. আতিকুল ইসলাম, বিনা উপকেন্দ্র সাতক্ষীরার বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মাসুম সরদার ও উপ-সহকারি কৃষি অফিসার কিরণময় সরকার প্রমুখ।
এসময় প্রধান অতিথি অতিরিক্ত সচিব দীপক কান্তি পাল বলেন, বর্তমান সরকার কুষকের কল্যাানের জন্য জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করেছেন। এ ফান্ডের অর্থয়নে কৃষকদের কল্যানে নানা মুখি কার্যক্রম হতে নেওয়া হয়েছে। এই কার্যক্রমের সুফল ইতোমধ্যে এ অঞ্চলের কৃষক পেতে শুরু করেছে। আগামীতেও এ সকল কার্যক্রম অব্যহত থাকবে।
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ কৃষি নির্ভর দেশ। আর কৃষকরা হচ্ছে এই দেশের প্রাণ। তাই কৃষক এবং কৃষির উন্নয়নে বাংলাদেশ পরমানু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) এর কর্মকর্তারা গবেষণার মাধ্যমে নতুন নতুন জাত উদ্ভাবন করে চলেছে। এসব জাত অন্যান্য কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারলে কৃষি ক্ষেত্রে খাদ্য শষ্য উৎপাদনে আরও ভূমিক রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত বরেন।
##