সাতক্ষীরায় মসজিদের মধ্যে ঢুকে বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যা : বিচার দাবি


359 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় মসজিদের মধ্যে ঢুকে বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যা : বিচার দাবি
জুলাই ২১, ২০১৯ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আসাদুজ্জামান ::

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গায় ছাগলে ফসল নষ্ট করাকে কেন্দ্র করে মসজিদের মধ্যে ঢুকে আকবর আলী নামের এক বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে এবং এ মামলার আসামী ও তাদের স্বজন কর্তৃক নিহতের পরিবারকে হুমকি ধামকি প্রদানের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন নিহত আকবর আলীর মেয়ে ফতেমা খাতুন।
তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, গত ১৩ জুলাই সন্ধ্যায় ছাগলে ফসল নষ্ট করাকে কেন্দ্র করে একই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, হত্যাসহ একাধিক মাদক ও নাশকতা মামলার আসামী আহছান সরদার, আক্তারুল সরদার, আব্দুল্লাহ সরদার, মোতালেব সরদার, কুদ্দুস মোড়ল, ইদ্রিস আলী মোড়লসহ ১০/১২ জন সন্ত্রাসী ব্যক্তি বালিয়াডাঙ্গা মসজিদের মধ্যে প্রবেশ করে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার পিতা আকবর আলী, চাচা আব্দুল গফফার ও রইচ উদ্দীন সরদার এবং আমার ৫ বছরের শিশু কন্যা জান্নাতুল মাওয়াকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এতে আমার পিতা আকবর আলী ও চাচা রইচ উদ্দীন সরদার গুরুতর আহত হলে মসজিদের মুসল্লিদের সহযোগিতায় তাদের সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আমার পিতা আকবর আলীর অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেলে প্রেরনের নির্দেশ দেন। এরপর ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৬ জুলাই আমার পিতা মারা যান। এ ঘটনার পরদিন আমার মাতা রোজিনা খাতুন বাদী হয়ে সন্ত্রাসী আহছান সরদারসহ ১০ জনের নামে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ ৪ নং আসামী মোতলেবকে আটক করলেও পরবর্তীতে থানা থেকে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। তিনি আরো বলেন, এ হত্যা মামলা দায়েরের পর থেকে আসামীরাসহ তাদের স্বজনরা আমাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে এবং মামলা তুলে না নিলে আমাদের পরিবারের সকলের পরিণতি আমার পিতার মত হবে বলে হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে। তিরি বলেন, আসামীদের বিরুদ্ধে হত্যা, মাদক ও নাশকতাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। তারা প্রকাশ্যে রাম দা, কুড়ালসহ বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। তাদের ভয়ে এলাকার মানুষ মুখ খুলতে সাহস পায়না। বর্তমানে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এমতাবস্থায় আমার পিতা হত্যাকারীদের দুষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং আমার ও আমার পরিবারের জীবনের নিরাপত্তার দাবীতে সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি। সংবাদ মম্মেলনে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, চাচা আব্দুল গফফার ও রইচ উদ্দীন সরদার, স্থানীয় ইউপি সদস্যা সরবানু খাতুন, প্রতিবেশী আমেনা খাতুন, রোজিনা খাতুন, আম্বিয়া খাতুনসহ অর্ধ শতাধিক নারী-পুরুষ।

#