সাতক্ষীরায় মিথ্যা হয়রানি মূলক সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


71 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় মিথ্যা হয়রানি মূলক সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৯ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের চিহ্নিত জামায়াত ক্যাডার গোলাম বারী কর্তৃক ওয়ার্ড আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা হয়রানি মূলক সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে উক্ত সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন, কালিগঞ্জ উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের মৃত আলহাজ্ব শেখ আব্দুস সাত্তারের পুত্র শেখ হাবিবুল্লাহ।
তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমি কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি। বর্তমান পুলিশিং কমিউনিটির সভাপতি। আমার পিতার আনুমানিক ৫০ বিঘা সম্পত্তি ছিলো। পিতার মৃত্যুর পর তার সকল সম্পত্তি আমার বড় ভাই চিহ্নিত জামায়াত ক্যাডার গোলাম বারি দেখাশোনা করত। আমি লেখাপড়া না জানার কারণে ইটাভাটার ব্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ করতাম। আর যেহেতু বড় ভাই শিক্ষিত এবং সেনাবাহিনীতে চাকুরি করতো সেকারণে সরল বিশ^াসে তার কাছেই পুরো সম্পত্তি দেখাশোনার দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু আমার অর্থলোভী বড় ভাই কৌশলে আমাদের সম্পত্তি ভোগদখল শুরু করে এবং জমির সকল কাগজপত্র ও গচ্ছিত টাকা পয়সা হস্তগত করে নেন। এক পর্যায়ে আমি জমি জমার হারীর টাকা এবং জমির কাগজপত্র দেখতে চাইলে আমার কোন হিসাব না দিয়ে তাড়িয়ে দেন। এছাড়া সাতক্ষীরা শহরের কাটিয়া মেঠোপাড়ার এক জামায়াত পরিবারের কন্যাকে তিনি বিয়ে করে সেখানে দীর্ঘ ৩০/৩৫ বছর ঘর জামাই হিসেবে বসবাস করেন। এখানেই বসেই আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হন। একপর্যায়ে ২০১৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর জেলা পুলিশের অপরাধ শাখায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে অপরাধ শাখার তৎকালীন পরিদর্শক আযম খানের নির্দেশে ৫ জনের একটি প্রতিনিধি দল সরেজমিনে সেখানে গিয়ে ৩ ভাই, ১ বোন ও মায়ের অংশ সমানভাবে ভাগ বন্টন করে দেন। সে সময় বড় ভাইসহ সকলেই উপস্থিত ছিলেন এবং ওই ভাগ বন্টন মিনে নিয়ে স্ব স্ব জমি ভোগদখল শুরু করেন। ইতিমধ্যে বড় ভাই তার অংশের ৪ বিঘা সম্পত্তি বিক্রয় করেন এবং আরো দুটি স্থানে সম্পত্তি বিক্রয়ের জন্য মানুষের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা নেন। এখন আমার সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে ও আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা হয়রানিমূলক অভিযোগ করে যাচ্ছেন। তিনি আরো বলেন, আমার সাথে আমার বড় ভাই ছাড়া আর অন্য ভাই-বোন বা মায়ের সাথে আমার কোন বিরোধ নেই। প্রকৃতপক্ষে বড় ভাই প্রায়ই আমাকে জামায়াত করার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। কিন্তু আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হওয়ার কারণে এবং তার কথা না শোনার কারণে সম্পত্তির ভাগ বাটোয়ারা নিষ্পত্তি হওয়ারপরও বিভিন্ন দপ্তরে তিনি আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানি করে যাচ্ছেন। এরই জের ধরে গত ২ আগষ্ট সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে হাজির হয়ে আমার বড় ভাই গোলাম বারী আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন। আমি কখনো কোন অপরাধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ছিলাম না।
এমতাবস্থায় তিনি (হাবিবুল্লাহ) উক্ত পরসম্পদ লোভী জামায়াত ক্যাডার বারির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ ও পিতার সম্পত্তির গচ্ছিত কাগজপত্র ফিরে পেতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

#