সাতক্ষীরায় রোপা আমনের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা


364 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় রোপা আমনের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা
নভেম্বর ১৬, ২০১৬ কৃষি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গোলাম সরোয়ার :
আবাদ কমলেও চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরা জেলায় রোপা আমন ধানের ফলন ভালো হয়েছে। ফলে চাল উৎপাদন লক্ষ্য ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর।
জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর সুত্রে জানা গেছে, সাতক্ষীরার সাতটি উপজেলাতে চলতি মৌসুমে ৮৪ হাজার ৩৫৫ হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয়েছে। এরমধ্যে সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় ১৬ হাজার ৫২৫ হেক্টর, কলারোয়ায় ১১ হাজার ১৫৫ হেক্টর, তালায় ৮ হাজার ৬৯৫ হেক্টর, দেবহাটায় ৮ হাজার ১৮০ হেক্টর, কালিগঞ্জে ১৬ হাজার ৯৫৫ হেক্টর, আশাশুনিতে ৯ হাজার ৭৫৫ হেক্টর এবং শ্যাগনর উপজেলাতে ১৬ হাজার ৯৫ হেক্টর জমিতে। সুত্রটি আরো জানায়, এবার চাল উৎপাদন লক্ষ্য নির্ধারন করা হয়েছে ২ লাখ ২৬ হাজার ৮৬৬ মেট্রিকটন। ওই লক্ষ্য সামনে রেখে জেলায় ২ লাখ ৬০ হাজার কৃষক রোপা আমন চাষ করছে। অন্যদিকে গেল মৌসুমে সাতক্ষীরার সাতটি উপজেলাতে রোপা আমন আবাদ করা হয়েছিলো ৯৪ হাজার ২০০ হেক্টর পরিমান। সে হিসাবে এবার ১০ শতাংশ পরিমান আবাদ কমেছে।
সাতক্ষীরা সদর উপজেলা ধুলিহর গ্রামের কৃষক রইচ উদ্দীন জানান, চলতি মৌসুমে ১৫ বিঘা জমিতে উচ্চ ফলনশীল জাতের ধানের চাষ করেছেন। তিনি বলেন, গেলবার ২০ বিঘা জমিতে রোপা চাষ করেন। কিন্ত উৎপাদন ভালো করেও বাজারে ন্যায্য দাম না পাওয়ায় এবার ৫ বিঘা কম পরিমান জমিতে রোপা আমন চাষ করেছেন তিনি। ইতিমধ্যে কিছু জমির ধান কর্তন শুরু করেছেন বলে জানান তিনি।
একই উপজেলার ঘুটেরডাঙ্গী গ্রামের কৃষক নজরুল ইসলাম জানান, চলতি মৌসুমে ১০ বিঘা জমিতে রোপা আমন চাষ করেছেন। সার, কিটণাশক ও শ্রমিকের পাওনা দিয়ে বিঘা প্রতি প্রায় ৭ হাজার খরচ হয়েছে। তবে অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে ফলন ভালো হয়েছে বলে জানান তিনি। বিঘাতে ২২ থেকে ২৪ মন পর্যন্ত ধান উৎপাদন হবে বলে জানান তিনি।
এদিকে চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরার সাতটি উপজেলার জন্য রোপা আমন চাল সরকারী ভাবে উৎপাদন লক্ষ্য নির্ধারন করা হয়েছে ২ লাখ ২৬ হাজার ৮৬৬ টন। এরমধ্যে সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় ৪৪ হাজার ৩৪৯ টন, কলারোয়ায় ৩০ হাজার ৩০৬ টন, তালায় ২২ হাজার ৩৮১ টন, দেবহাটায় ১৪ হাজার ৭৯ টন, কালিগঞ্জে ৪৬ হাজার ৩৬ টন, আশাশুনিতে ২৬ হাজার ২৭৮ টন এবং শ্যাগনর উপজেলাতে ৪৬ হাজার ৪৩৭ টন। সুত্রটি আরো জানায়, গত মৌসুমে জেলায় আমন চাল উৎপাদন হয়েছিলো ২ লাখ ৫৩ হাজার ৩১০ টন। সে হিসাবে চলতি মৌসুমে চাল উৎপাদন লক্ষ্য কমেছে ২৭ হাজার টন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ কাজী আব্দুল মান্নান জানান, গতবারের তুলনায় চলতি মৌসুমে রোপা আমনের আবাদ কিছুটা কমলেও ফলন ভালো হওয়ায় চাল উৎপাদনের লক্ষ্য ছাপিয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, গেল মৌসুমে যে সব জমিতে রোপা আমন করা হয়েছিলো এসব জমির কিছু কিছুতে এবার মাছ চাষ করা হচ্ছে। #