সাতক্ষীরায় শিশুদের যৌন নির্যাতন প্রতিরোধে এ্যাডভোকেসী সভা


264 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় শিশুদের যৌন নির্যাতন প্রতিরোধে এ্যাডভোকেসী সভা
সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

*নিরাপদ ইন্টারনেট ব্যবহার এর মাধ্যমে
০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সাতক্ষীরা জেলার সদর উপজেলার লাবসা ইমাদুল হক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে অগ্রগতি সংস্থা’র বাস্তবায়নে “ইন্টানেটের অপব্যবহার ও ট্যুরিজমের মাধ্যমে শিশুদের যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ” প্রকল্পের এ্যাডভোকেসী মিটিং স্কুলের শিক্ষক ও ম্যানেজমেন্ট কমিটির সমন্বয়ে প্রধান শিক্ষক মো: শফিকুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত হয় । উপস্থিত সকলের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় ও পরিচয় পর্বের মধ্য দিয়ে সভার কার্যক্রম শুরু হয় । বক্তারা বলেন, ইন্টারনেটের অপব্যবহারের শিশুদের যৌন নির্যাতন ও যৌন শোষনের বিষয়টি আশংকজনক হারে বাড়ছে । ইন্টারনেটের অনিরাপদ ব্যবহার শিশুদের নিরাপত্তাকেও ঝুকিপূর্ন করে তুলছে । তাই এখনই এ বিষয়ে সতর্ক না হলে ভয়াবহতা আরও বাড়বে । আলোচনার বিষয়বস্ত হিসাবে শিশুদের বিদ্যালয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে শিশু সুরক্ষা কমিটি গঠণ করা । ইন্টারনেটে ও মোবাইলে শিশু যৌন নির্যাতন কিভাবে হয়,ইন্টারনেট ব্যবহারের ভাল ও মন্দ দিক, নিরাপদ ইন্টারনেট ব্যবহার নির্দেশিকা বইটির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় । আলোচনান্তে সকলে একমত পোষন করেন যে,ইন্টানেটের মাধ্যমে আমাদের শিশুরা বিশ্বের বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করার সুযোগ পাচ্ছে সেকারনে ইন্টারনেট ব্যবহার শিশুদের জ্ঞান বিকাশের জন্য অত্যাবশ্যক কিন্তু তাদেরকে ইন্টারনেট ব্যবহার করার পূর্বে ভাল-মন্দ উভয় অপসান সম্পর্কে জানতে হবে এবং সেমত সঠিকভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে হবে । অনেকে ইন্টারনেটের অপব্যবহারের মাধ্যমে তারা নিজেরা ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে ও অনেক সময় দুষ্ট চক্রে পড়ে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে যারফলে তাদের পড়ালেখায় অমনোযোগী ও কাজে-কর্মে অন্যমনোস্ক হচ্ছে । এক পর্যায়ে সভাপতি বলেন, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে আমরা প্রতিনিয়ত এগিয়ে যাচ্ছি কিন্তু প্রযুক্তির অপব্যবহার আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে পিছিয়ে দিচ্ছে তাই আমাদেরকে এখন থেকে সতর্ক হতে হবে আমাদের সন্তানদের দিকে খেয়াল রাখতে হবে তারা যেন ইন্টারনেটের অপব্যবহারের মাধ্যমে বিপদগামী না হয় । শিক্ষক হিসাবে ছাত্র ছাত্রীদেরকে খারাপটাকে বর্জন করে তাদেরকে ভালর দিকে নিয়ে যাওয়া আমাদের দায়িত্ব । তিনি আরও বলেন,আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদেরকে আরও সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে শিশু অধিকার ইউনিট প্রণীত নিরাপদ ইন্টারনেট ব্যবহারে সচেতনতা বিষয়ক নির্দেশিকাটি পাঠ্যসূচীর অংশ হিসাবে শ্রেণীতে আলোচনা রাখবো যাতে করে ভবিষ্যতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের কোন শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার না হয় । সমগ্র অনুষ্টানটি পরিচালনা করেন সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার মো: সফিউল হক ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি
##