সাতক্ষীরায় শ্রী কৃষ্ণের শুভ আবির্ভাব তিথি উদ্যাপন


643 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় শ্রী কৃষ্ণের শুভ আবির্ভাব তিথি উদ্যাপন
আগস্ট ২৫, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আব্দুর রহমান :
পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের ৫২৪২তম শুভ আবির্ভাব তিথি উদ্যাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা করেছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সাতক্ষীরা জেলা শাখা। বৃহস্পতিবার (২৫আগষ্ট) পুরাতন সাতক্ষীরা মায়েরবাড়ী মন্দির প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি মনোরঞ্জন মুখার্জী’র সভাপতিত্বে এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর ০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মোঃ মহিউদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক মুনসুর আহমেদ, সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোঃ আলতাফ হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম,  সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আসাদুজ্জামান বাবু, জেলা মন্দির কমিটির সভাপতি মঙ্গল কুমার পাল, জয় মহাপ্রভু সেবক সংঘের সভাপতি বিশ্বনাথ ঘোষ, হিন্দু কল্যাণ ট্রাষ্টের সহকারি পরিচালক লিটন শিকদার, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি বিশ্বজিৎ সাধু, পূজা উদ্যাপন কমিটির আহবায়ক নয়ন কুমার সানা ও প্রাননাথ দাস প্রমুখ। আলোচনা সভায় সদর ২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি বলেন, ‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার। শ্রীকৃষ্ণ বিশৃঙ্খল ও অবক্ষয়ীত মূল্যবোধের সময়ে পৃথিবীতে মানব প্রেমের অমিত বাণী প্রচার ও প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। শ্রীকৃষ্ণ সৃষ্টের পালন ও দুষ্টের দমন ব্রতী নিয়ে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন। সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তাই ভগবানের আসনে অধিষ্ঠিত শ্রীকৃষ্ণ। এসময় তিনি আরো বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী। জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার যখন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকে তখন সকল ধর্মের মানুষেরা শান্তিপূর্ণভাবে তাদের ধর্মীয় পালন করতে পারে। মহান স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেদিন বাংলার মানুষকে ভালবেসে বাঙালী জাতির অধিকার আদায়ে সংগ্রাম করেছিলেন। ১৯৭৫ সালের এই মাসে তাঁকে যারা হত্যা করেছে তাদের প্রেত্বাত্বারা আজো বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা ও দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিনত করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।’ আলোচনা সভা শেষে পুরাতন সাতক্ষীরা মন্দির প্রাঙ্গন থেকে শ্রীকৃেষ্ণর শুভ জন্মদিন জন্মাষ্টমী উপলক্ষে একটি বর্ণাঢ্য  শোভাযাত্রা বের হয়। আলোচনা সভায় ভোমরা ইউনিয়নের লক্ষীদাঁড়ী এলাকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পক্ষে প্রস্তাবিত ভূমি অধিকরণ প্রসঙ্গে একটি স্বারকলিপি পেশ করা হয়। স্বারকলিপিতে উল্লেখ আছে, বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃক বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে ভূমি অধিগ্রহনের কর্ম পরিকল্পনা হয়েছে এবং ম্যাপও করা হয়েছে। প্রস্তাবিত স্থান পরিবর্তনের দাবীতে এ স্মারকলিপি প্রদান করেছে এলাকাবাসী। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কাটিয়া সার্বজনীন মন্দিরে গিয়ে শেষ হয়। এসময় ভক্তবৃন্দের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হয়। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক এড. অনিত মুখার্জী।