সাতক্ষীরায় সম্পত্তি দখল চেষ্টার প্রতিবাদে আলাউদ্দীনের সংবাদ সম্মেলন


301 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় সম্পত্তি দখল চেষ্টার প্রতিবাদে আলাউদ্দীনের সংবাদ সম্মেলন
অক্টোবর ২৪, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

সাতক্ষীরায় সংখ্যালঘুর দোহাই দিয়ে ভোগদখলীয় রেডর্কীয় সম্পত্তি দখল করার চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করে সাতক্ষীর সদরের এগারআনী গ্রামের মৃত দবির উদ্দীনের ছেলে অালহাজ্ব মো: আলাউদ্দীন সরদার।

লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, আখড়াখোলা এলাকার গুরু চয়ন সাধুর ছেলে কার্ত্তিক চন্দ্র, সাধন চন্দ্র সাধু, হারান সাধুর ছেলে তুলসী সাধু, মধু সাধু, পঞ্চানন সাধুর ছেলে শিবপদ সাধু গং বিগত ১৯৮১ আখড়াখোলা মৌজায় এস এ ২৯০ নং খতিয়ানের ১৪৭ দাগে মৃত রাজেন্দ্র নাথ সাধুর ছেলে দুলাল চন্দ্র সাধু’র নিকট থেকে ৩০ শতক জমির মধ্য থেকে ২০ শতক জমি কোবলা মূলে খরিদ করে। যার দলিল নং- ৭৬২৪/৮১ ও ৭৬২৮/৮১।

উক্ত ২০ শতক সম্পত্তি ক্রয়করে উল্লেখিত ব্যক্তিরা ঘরবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগদখলে থাকে। বাকী ১০ শতকসহ ৩ শতক খাস জমি কোবলাদাতা দুলাল চন্দ্র সাধু ঘরবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করে। ১৯৮৪ সালে জমিসহ ঘরবাড়ি দখলে থাকা অবস্থায় দুলাল চন্দ্রের কাছ থেকে আমি ক্রয় করি। যাহার দলিল নং ২৬৬৯/৯৪।

১৯৯০ সালের মাঠ জরিপে বিবাদীদের কোবলাকৃত ২০শতক যথারীতি তাদের নামে রেকর্ড হয় এবং আমার দখলে থাকা ১০ শতকের মধ্যে ৯ শতক ও পজেশন ক্রয় করার কারনে ১৯৯০ সালে মাঠ জরিপে ওই ১০ শতকের মধ্যে বাকী ১ শতক সহ মোট ৪ শতক খাস জমি আদালত প্লট করে আমার নামে মাঠ রেকর্ড, ১ম ও ম্যাপ তৈরি করে দেন। এরপর ১৯৮৪ সাল থেকে উভয়পক্ষ শান্তিপূর্ণভাবে ভোগদখলে থাকাকলে উক্ত ব্যক্তিরা ওই তিন শতক খাস জমি তাদের পৈত্রিক বলে দাবি করতে থাকে এবং কোবলা দলিল অস্বীকার করে গত ইং ১২/৬/১৮ তারিখে সাতক্ষীরা সদর সহকারী জজ আদালতে দেং ৭৭/১৮ নং নির্মিত স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য মামলা করে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে উভয়পক্ষ কে দালিলিক প্রমানসহ আদালতে হাজির হওয়ার লিখিত আদেশ দেন। সে মোতাবেক আমি যথারিতি বর্তমান রেকর্ড, ম্যাপ, দাখিল করি। তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি দাবী করে আদালতে সুট ফর ইনজেংকশনের আবেদন জানালে আদালত, শুনানীঅন্তে আবেদন নামঞ্জুর করে দেন।

এঘটনায় উল্লেখিত ব্যক্তিরা আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় কিছু সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যেয়ে হুমকি প্রদর্শন করে বলে আদালত বুঝিনা জমি ছাড়তে হবে। তখন আমি উপায়ন্তর হয়ে আমার সম্পত্তি রক্ষার্থে গত ইং- ১৮/১০/১৮ তারিখে সাতক্ষীরা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পি ৫৯৮/১৮ নং মামলা দায়ের করি। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। তাছাড়া বাদী তার দখলে থাকা জমিতে যাতে শান্তিপূর্ণভাবে দোকান নির্মাণ করতে পারে সে কারণে আদালতে দরখাস্তসহ নথি উপস্থাপনের আবেদন করলে আগামী ২৫/১০/২০১৮ তারিখে শুনানীর দিন ধার্য্য করেন আদালত।

এ বিষয়ে গত ২৩/১০/১৮ তারিখ সকালে উভয় পক্ষের সাথে চেয়ারম্যানের বসাবসির দিন ধার্য্য ছিলো। কিন্তু চেয়ারম্যানকে অবমূল্যায়ন করে আবারো সন্ত্রাসী বাহিনী এবং সংখ্যালুঘদের সহযোগিতায় আমার দোকানঘর দখলের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয় তারা।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

##