সাতক্ষীরায় সরকারী আইন সহায়তা কার্যক্রমে বিকল্প সাফল্য ও সম্ভাবনা বিষয়ক সেমিনার


353 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় সরকারী আইন সহায়তা কার্যক্রমে বিকল্প সাফল্য ও সম্ভাবনা বিষয়ক সেমিনার
এপ্রিল ২৫, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল আলম মুন্না :
সমঝোতায় শান্তি মিলে, মামলায় বাড়ে হিংসা, সমঝোতার জন্য চলো করি মিমাংসা এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রবিবার বিকাল সাড়ে ৫ টায় সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জন মিলানায়তনে দায়িত্বপ্রাপ্ত লিগ্যাল এইড অফিসার ও  সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ কেরামত আলীর সঞ্চালনায় সরকারী আইন সহায়তা কার্যক্রমে বিকল্প সাফল্য ও সম্ভাবনা বিষয়ক জনসচেতনতা মূলক এক সেমিনার অনুষ্টিত হয়।

সেমিনারে সভাপ্রধান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরার বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ এবং জেলা লিগ্যাল এইড কমিটি চেয়ারম্যান জোয়ার্দ্দার মোঃ আমিরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ (১ম আদালত)  মোঃ আশরাফুল ইসলাম, বিজ্ঞ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ রাফিজুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এস,এম, মোস্তফা কামাল।

সেমিনারে সভাপ্রধান বলেন এই অনুষ্ঠানের মূল কারন হলো বিকল্প বিরোধ মিমাংসা বিষয়ক সহজে যাতে এই এলাকার সাধারন মানুষ ঝগড়া, বিবাদ, মারামারি করে কেচ কামারিতে না জড়িয়ে সহজে বিরোধ মিাংসা করে এতে উভয়েরই সময়ের ক্ষতি হবেনা, হবেনা কোন আর্থিক ক্ষতি। প্রাচীন আমলের দিকে খেয়াল করলে দেখা যায় বিভিন্ন েিগাত্রে গোত্রে ঝগড়া বিবাদ, মারামারি হানাহানি লেগেই থাকতো সেগুলো আবার মোড়ল মাতুব্বররা আপষে মিটিয়ে ফেলতো ফলে তারা আবার একসাথে সুন্দরভাবে বসবাস করতো। বর্তমানে অনেক এলাকায় দেখা যায় যে যারা অসহায়, দরিদ্র, তৃনমূলে বসবাস করে তারা আগে সেই এলাকার শিক্ষকদের দারস্ত হতো কারন শিক্ষরা সমাজের একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় সেহেতু তাদেরকে অনেকে শ্রদ্ধার সাথে মূল্যায়ন করে বলে আপনি যেটা রায় দিবেন সেটা আমারা মেনে নেবো । বর্তমানে এর হার কিছিুটা কমে গেলেও একবারে অবমূল্যায়ন হয়না। এজন্য আমি বলবো সামান্য বিষয় নিয়ে ঝগড়া বিবাদ না বাধিয়ে যেমন পারিবারিক নির্যাতন, পারিবারিক সহিংসতা, ঝগড়াসহ সাধারণ মারামারিগুলো স্থানীয় ভাবে মিটিয়ে ফেলা অনেক শ্রেয়। ইউরোপ, আমোরিকায় দেখা যায় বিকল্প বিরোধ ভ্যবস্তা থাকার ফলে সেদেশের জনগণ অনেক ফল পেয়েছেন সেজন্য আমাদের দেশে সরকারীভাবে এতো সুযোগ থাকতে কেন আমরা সেটা গ্রহণ করবোনা।  এজন্য রাষ্ট্রের জন্য, সমাজের জন্য, জনগনের জন্য সরকারের এই পদক্ষেপকে এগিয়ে নেওয়ার আহবান করেন।
লিগ্যাল এইড বিষয়ে তিনি বলেন আগামী ২৮ এপ্রিল লিগ্যাল এইড দিবস এইে উপলক্ষে দিবসটিকে সাফল্য মন্ডিত করে তুলতে সকলের সহযোগিতার আশ্বাসকে স্বাগত জানিয়ে  বলেন মুলত সরকার এদেশে বসবাসরত অসহায়, দরিদ্র, অনাথ, অসচ্ছল পরিবারের সদস্য বা ধনী ঘরের বউ-মেয়েরা যাদের ইনকাম নেই এবং   যাদের মামলা চালাবার সক্ষমতা নেই তারাই শুধু এই লিগ্যাল এইড এর মাধ্যমে সুষ্ঠু বিচার পাবেন এক্ষেত্রে তাদের কোন খরচ লাগবেনা কারন এসব খরচ বাংলাদেশ সরকার পুরোটাই বহন করবে। এ জন্য প্রত্যেককে যার যার অবস্থানে থেকে যারা লিগ্যাল এইড সম্পর্কে জানেনা বা বেঝেনা তাদেরকে এ বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করতে হবে তাহলে অনেক লোক এর সুফল পাবে। এবিষয়ে সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এস,এম, মোস্তফা কামাল বলেন মিমাংসায় অনেকগুরো মামলা রোধ করা যায় এতো বাদী-বিবাদী উভয়ের উপকার হয়, আমাদের দেশে জনগণের তুলনায় বিচারক স্বল্পতা রয়েছে যার ফলে বিরোধপূর্ণ মামলায় দ্রুত নিম্পত্তিতে সময় লেগে যাচ্ছে এজেন্য যদি আপোষযোগ্য বিরোধ মিমাংসা নিস্পত্তি করা যায় তাহলে দেশ এবং মানুষের জন্য কল্যান বয়ে আসবে।

এই সেমিনারে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা আইনজীবি সমিতির সভাপতি এ্যাড. আব্দুল মজিদ, সেক্রেটারি এ্যাড. তোজাম্মেল হক, জিপি গাজী লুৎফর রহমান, পিপি এ্যাড. ওসমান গনি, প্যানেল আইনজীবি এ্যাড. আশরাপল আলম বাবু ও ভিকটিম আরিফা খাতুন।  অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ মোঃ পারভেজ শাহরিয়ার, বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রিপতি কুমার বিশ্বাস, বিজ্ঞ সহকারী জজ মুনিয়া জাহিদ, বিজ্ঞ সহকারী জজ ফারাহ বিদা ছন্দা, বিজ্ঞ সহকারী জজ মঞ্জুরুল ইসলাম, বিজ্ঞ অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মহিবুল হাসান,এ্যাড. আছাদুজ্জামান দিলু জেলার মোঃ আবু তালেব, সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসার কে,এম ওবায়দুল্রাহ আল মাসুদ, বরসা’র সহকারী পরিচালক মোঃ নাজমুল আলম মুন্না, ব্র্যাকের জেলা প্রতিনিধি মোঃ রেজাউল ইসলাম, উত্তরণের এ্যাড. মুনির উদ্দীন, ওয়ার্ল্ড ভিশনের জেন্ডার প্রজেক্ট ম্যানেজার সুরভী বিশ্বাস প্রমুখ । আইন ও বিচার বিভাগ, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্র্রনালয় এবং জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা এই কর্মসূচীর আয়োজন করে।