সাতক্ষীরায় স.ম আলাউদ্দীন হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী মোহন ও বহিস্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সাহেদকে দিয়ে জেলা তরুণলীগের কমিটি গঠন !


421 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় স.ম আলাউদ্দীন হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী মোহন ও বহিস্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সাহেদকে দিয়ে জেলা তরুণলীগের কমিটি গঠন !
সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
বীরমুক্তিযোদ্ধা স.ম আলাউদ্দীন হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী ও জেলা ছাত্রলীগ থেকে বহিস্কৃতদের নিয়ে তরুণলীগের নতুন জেলা কমিটি গঠিত হয়েছে। কমিটির সভাপতি হয়েছেন আলাউদ্দীন হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী মোমিনুল্লাহ মোহন ও সাধারণ সম্পাদক জেলা ছাত্রলীগ থেকে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজীবন বহিস্কৃত সাহেদুজ্জামান সাহেদ। এতে করে ত্যাগী নেতাকর্মীরা বাদ পড়েছেন। ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে বিতর্কিত নেতাদের নিয়ে নবগঠিত তরুণ লীগের কমিটি গঠিত হওয়ায় নেতাকর্মীদের মাঝে তীব্রক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

তরুণলীগের নেতাকর্মীরা জানান, সংগঠনটি দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে সাতক্ষীরা জেলা তরুণলীগকে প্রতিষ্ঠিত করে মানুষের মন জয় করেছিলো। কিন্তু কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের হস্তক্ষেপে আকষ্মিকভাবে বিতর্কিত মোমিনুল্লাহ মোহন ও সাহেদুজ্জামান সাহেদ কে এ কমিটির দায়িত্ব দেওয়ায় আমরা হতাশ হয়েছি। এ কমিটি গঠিত হওয়া প্রকৃত ত্যাগী নেতারা বাদ পড়েছেন।

এব্যাপারে জেলা তরুণ লীগের সাবেক সভাপতি মীর আশরাফ আলী বাবু জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমি সংগঠনির সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি। ইতোমধ্যে সংগঠনটির কার্যক্রম ও এগিয়ে নিয়েছি। কিন্তু আকর্স্মিকভাবে আমাকে কোন নোটিশ ছাড়ায় কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক পূর্বের কমিটি স্থাগিত ঘোষনা করেণ। পরবর্তীতে মোমিনুল্লাহ মোহন কে সভাপতি ও সাহেদুজ্জামান সাহেদ কে সাধারণ সম্পাদক করে সাতক্ষীরা জেলা তরুণলীগের কমিটি ঘোষনা করেছেন। কিন্তু আমাকে কোন প্রকার নোটিশ তিনি দেননি। তিনি জানান, মমিনুল্লাহ মোহন আওয়ামী লীগ নেতা স.ম আলাউদ্দিন হত্যা মামলার চার্জশীটভূক্ত আসামি এবং সাহেদুজ্জামান সাহেদ ছাত্রলীগ থেকে আজীবন বহিস্কৃত।

তিনি আরো জানান,  তরুণ লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মনগড়াভাবে  তিনি বর্তমান কমিটি ঘোষনা করেছেন। এতে করে আমিসহ জেলা তরুণের নেতাকর্মীরা সংগঠনের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছে।

তিনি এব্যাপারে তরুণ লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ অঙ্গসহযোগী ও আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এব্যাপারে কেন্দ্রীয় তরুণলীগের জিএম শফিউল্লাহের সাথে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে (০১৭১১ ৭৩৫০৭৩) বার বার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।
এদিকে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাহেদুজ্জামানের সাহেদ বহিস্কারের ব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এহসান হাবিব অয়ন ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, ২০১৩ সালের ১০ নভেম্বর সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপে জড়িত থাকার কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক সাহেদ কে আজীবন ছাত্রলীগ থেকে বহিস্কার করা হয়।