সাতক্ষীরায় হত্যা মামলার আসামীরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদী ও তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে


359 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় হত্যা মামলার আসামীরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদী ও  তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে
আগস্ট ১২, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টার্ফ রিপোর্টার :
সাতক্ষীরায় একটি হত্যা মামলার আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়িয়ে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদী ও তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি ধামকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। আসামীদের ভয়ে বাদীর পরিবার বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। বুধবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন সাতক্ষীরা সদর থানার খাঁনপুর ফুলবাড়ি গ্রামের নিহত মাজেদ সরদারের ছেলে মোঃ আলী আহম্মদ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখত বক্তব্যে আলী আহম্মদ বলেন, তার বড় ভাইয়ের শালিকাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করার প্রতিবাদ করায় সদর উপজেলার খাঁনপুর গ্রামের আবু বক্কার সরদারের ছেলে অনিছুর রহমান, সামাদ আলীর ছেলে শাহবুদ্দিন, আবু বক্তার সরদারের ছেলে মতিয়ার রহমান, আবু জাফর ও আব্দুস সবুরসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ আসামী গত ২ জুলাই ২০১৫ তারিখ রাত সাড়ে ৯ টার দিকে তার পিতা অব্দুল মাজেদ সরদারকে স্থানীয় সাগরের চায়ের দোকানের সামনে একা পেয়ে বেদম মারপিট করে। এঘটনায় তার পিতা মারাত্মক ভাবে আহত হয়। এসময় স্থানীয়রা উদ্ধার করে তার পিতাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। কিন্তু আসামীরা রাতভর অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাদের বাড়ি পাহারা দেয়ায় তার পিতাকে চিকিৎস্যার জন্য হাসপাতালে নিতে পারেনি। অবস্থার অবনতি হতে থাকলে পরের দিন ৩ জুলাই সন্ধ্যায় গ্রামবাসীর সহায়তায় তারা তার পিতাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এঘটনায় ১৩ জুলাই সদর থানায় উল্লেখিত আসামীদের নামে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং-৩৬। কিন্তু অদ্যবধি মামলা কোন অসামী গ্রেফতার হয়নি।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, হত্যা মামলার আসামীরা গ্রামে তাদের স্ব-স্ব বাড়িতে থেকে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং মামলা তুলে নেয়ার জন্য তাদেরকে প্রতিনিয়ত হুমকি ধামকি দিচ্ছে। মামলা তুলে না দিলে আসামীরা তাদেরকে খুন জখম করবে বলেও প্রকাশ্যে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। আসামীদের ভয়ে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বর্তমানে তারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।
তিনি তার পিতার হত্যাকারিদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনে সোপার্দ করার দাবি জানান। একই সাথে  তারা যাতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে গ্রামে শান্তিপূর্ন ভাবে চলাফেরা করতে পারেন তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।