সাতক্ষীরা জেলায় এসএসসি পরীক্ষার্থী ১৮ হাজার ১শ ৯ জন


266 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা জেলায় এসএসসি পরীক্ষার্থী ১৮ হাজার ১শ ৯ জন
ফেব্রুয়ারি ২, ২০২০ ফটো গ্যালারি শিক্ষা সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

ডেস্ক রিপোর্ট ::

৩ ফেব্রুয়ারি সোমবার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধীনে চলতি বছরের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (এসএসসি) শুরু হচ্ছে। গত বছরের তুলনায় এ বছর যশোর বোর্ডে পরীক্ষার কেন্দ্রের সংখ্যা ১৭টি বৃদ্ধি পেলেও পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে ২১ হাজার ৮শ ৭৯ জন। এর মধ্যে ছেলে শিক্ষার্থী কমেছে ১১ হাজার ২৪ জন ও মেয়ে শিক্ষার্থী কমেছে ১০ হাজার ৮শ ৫৫ জন। পরীক্ষা গ্রহণে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র নিশ্চিত করেছেন।
সুষ্ঠু অবাধ ও নকল মুক্ত পরীক্ষা গ্রহনের জন্য ইতোপূর্বে কেন্দ্র সচিবদের নিয়ে বোর্ডে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় কেন্দ্র সচিবদের পরীক্ষা চলাকালে দিক নিদের্শনামূলক বক্তব্য দেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র। এ বছর এসএসসি পরীক্ষা নকল মুক্ত করতে খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় একটি করে ১০টি ভিজিলেন্স টিম ও বোর্ড থেকে ভিজিলেন্স টিম গঠন করা হয়েছে। চলতি বছরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড যশোরে ১ লাখ ৬১ হাজার ৬শ ৯৫ জন পরীক্ষার্থী নিশ্চিত করেছেন। গত বছর পরীক্ষার্থী ছিল ১ লাখ ৮৩ হাজার ৫শ ৭৪ জন। গত বছরের তুলনায় এ বছর ১৭টি কেন্দ্র বৃদ্ধি করে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় ২ হাজার ৫শ ২১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে এ বছর ৮০ হাজার ৬শ ৭০ জন ছেলে ও ৮১ হাজার ২৫ জন মেয়ে শিক্ষার্থী ২শ ৮৬টি কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। পরীক্ষা চলাকালে পরীক্ষা কেন্দ্রের আশপাশে জনসাধারণ কোনোভাবে অবস্থান করতে পারবেন না। এ বছর খুলনা বিভাগের ১০ জেলার মধ্যে খুলনা জেলা থেকে ২৪ হাজার ৪শ ৬০ জন, বাগেরহাট জেলা থেকে ১৩ হাজার ৮শ ৮৭ জন, সাতক্ষীরা জেলায় ১৮ হাজার ১শ ৯ জন, কুষ্টিয়া জেলায় ২২ হাজার ১শ ১০ জন, চুয়াডাঙ্গা জেলায় ১০ হাজার ৪শ ৫০ জন, মেহেরপুর জেলায় ৭ হাজার ৮শ ৭১ জন, যশোর জেলায় ২৭ হাজার ৮শ ৪৪ জন, নড়াইল জেলায় ৮হাজার ৮শ ৬৮ জন, ঝিনাইদহ জেলায় ১৮ হাজার ১শ ৪৯ জন ও মাগুরা জেলায় ৯ হাজার ৯শ ৪৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন।
বোর্ডের সংশোধিত সময়সূচি অনুযায়ী জানা গেছে, ৩ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত কোড নং ১০১ বাংলা (আবশ্যিক) ১ম পত্র, কোড নং ১০৩ সহজ বাংলা- ১ম পত্র দিয়ে শুরু হচ্ছে। ৪ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার কোড নং ১০২ বাংলা (আবশ্যিক)- ২য় পত্র, কোড নং ১০৪ সহজ বাংলা -২য় পত্র। বৃহস্পতিবার ৬ ফেব্রুয়ারি কোড নং ১০৭ ইংরেজি (আবশ্যিক) -১য় পত্র পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। দুই দিন ছুটির পর ৯ ফেব্রুয়ারি রোববার কোড নং ১০৮ ইংরেজি (আবশ্যিক)- ২য় পত্র, একদিন পর ১১ ফেব্রুয়ারি কোড নং ১০৯ গণিত (আবশ্যিক) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া, ১২ ফেব্রুয়ারি বুধবার কোড নং ১৫৪ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, বৃহস্পতিবার ১৩ ফেব্রুয়ারি সকাল ও বিকেলে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। কোড নং ১৫১ গার্হস্থ্যবিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), কোড নং ১৩৪ কৃষি শিক্ষা (তত্ত্বীয়), কোড নং ১৪৯ সঙ্গীত (তত্ত্বীয়), কোড নং ১২১ আরবি, কোড নং ১২৩ সংস্কৃত, কোড নং ১২৪ পালি, কোড নং ১৩৩ শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া (তত্ত্বীয়), কোড নং ১৪৮ চারু ও কারুকলা (তত্ত্বীয়), একই দিন বেলা ২টা হতে বিকেল ৫টা পর্যন্ত কোড নং ১৪৭ শারীরিক শিক্ষা, স্বাস্থ্যবিজ্ঞান ও খেলাধুলা (অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের জন্য), ১৫ ফেব্রুয়ারি শনিবার সকাল থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত কোড নং ১১১ ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা, কোড নং ১১২ হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, কোড নং ১১৩ বৌদ্ধ ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা ও কোড নং ১১৪ খ্রিস্ট ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, ১৭ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকাল থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত কোড নং ১৩৬ পদার্থবিজ্ঞান (তত্ত্বীয়), কোড নং ১৫৩ বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা, কোড নং ১৫২ ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং, ১৮ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত কোড নং ১১০ ভূগোল ও বেলা ২টা হতে ৫টা পর্যন্ত কোড নং ১৫৬ ক্যারিয়ার শিক্ষা (অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের জন্য), ২০ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কোড নং ১৩৭ রসায়ন (তত্ত্বীয়) কোড নং ১৪০ পৌরনীতি ও নাগরিকতা, কোড নং ১৪৩ ব্যবসার উদ্যোগ। ২২ ফেব্রুয়ারি শনিবার কোড নং ১৪৬ হিবাববিজ্ঞান, ২৩ ফেব্রুয়ারি রোববার কোড নং ১২৭ বিজ্ঞান ও কোড নং ১২৬ উচ্চতর গণিত (তত্ত্বীয়), ২৫ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কোড নং ১৩৮ জীব বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) ও কোড নং ১৪১ অর্থনীতি, ২৭ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার কোড নং ১৫০ বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়। এছাড়া, ২৯ ফেব্রুয়ারি শনিবার হতে ৫ মার্চ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত কোড নং ১৪৯ সঙ্গীতসহ সকল বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষা সকাল ১০ টা হতে পরীক্ষা শুরু হবে। এই পরীক্ষা স্ব স্ব পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। (যে কেন্দ্র/ভেন্যুতে তত্ত্বীয় পরীক্ষা দিয়েছে)।