সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির দরজা ভেঙ্গে আসবাবপত্র ভাংচুর


731 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির দরজা ভেঙ্গে আসবাবপত্র ভাংচুর
জানুয়ারি ১৫, ২০১৯ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::
সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার কার্যালয় সংলগ্ন জেলা আইনজীবী সমিতির ভবনের দরজা ভেঙ্গে রাতের অন্ধকারে আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা।
মঙ্গলবার দিবাগত রাতে জেলা আইনজীবী সমিতির পুরাতন ভবনের ভিতরের ৫টি টেবিল ও ৬টি জানালা ভাংচুর করা হয়।


জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আ.ক.ম রেজওয়ানউল্লাহ সবুজ বলেন, জেলা আইনজীবী সমিতির পুরাতন ভবনে প্রতিদিন প্রায় ৩০ আইনজীবী লাইব্রেীতে বই পড়েন। মক্কেলের সাথে কথা বলাসহ বিভিন্ন প্রয়োনীয় কাজ করেন। সোমবার রাত ১০ টায় আইনজীবীরা চলে যাওয়ার পর অফিস সহকারী সোহরাব হোসেন তালা লাগিয়ে বাড়িতে চলে যান। এই সুযোগে রাতের অন্ধকারে দুর্বৃত্তরা আইনজীবী সমিতির পুরাতন ভবনের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে ৫টি টেবিল ও ৬টি জানালা ভাংচুর করে। মঙ্গলবার সকালে অফিস সহকারী সোহরাব হোসেন এসে দেখেন দরজা ভাঙ্গা ও ভিতরের আসবাবপত্র তছনছ করা হয়েছে। এতে প্রায় লাখ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করলেও কোন কিছু চুরি হয়নি। বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়েছে। এব্যাপারে সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হবে।


সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. আবুল হোসেন (২) বলেন, পুলিশ সুপার কার্যালয়ের পাশে অবস্থিত জমিতে ১৮৭২ সালে জেলা আইনজীবী সমিতি, রার লাইব্রেরী ও বাথরুমসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ভবন নির্মিত হয়। পরবর্তীতে সমিতির উত্তর পাশে পুলিশ সুপারের কার্যালয় স্থাপিত হয়। পরে এই জমি নিয়ে পুলিশ সুপারের সাথে বিবাদ বাধে। জমি দখলকে কেন্দ্র করে নিয়ে হাইকোর্টে রীট করা হলে এ জমিতে উভয় পক্ষকে কোন প্রকার স্থাপনা নির্মাণ না করার কথা বলে চলতি বছরের ফেব্রুয়ামী মাস পর্যন্ত নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।


তিনি আরও বলেন, এই ভবনের মধ্যে আমাদের প্রায়োজনীয় আইন বিষয়ক বই, আসবাবপত্রসহ বিভিন্ন খেলাধুলার সামগ্রী আছে। প্রতিদিন এখানে প্রায় ৩০জন আইনজীবী লাইব্রেজীতে বই পড়েন। মক্কেলের সাথে মামলার বিষয়ে কথা বলে থাকেন এবং অনেকে সময় খেলাধুলা করেন। কিন্তু রাতের অন্ধকারে দুর্বত্তরা এই জেলার প্রাচীনতম আইনজীবী সমিতির ভবনের তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়েছে এটি খুবই দু:খজনক। এব্যাপারে পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। তদন্ত করে জড়িতদের শাস্তি দাবী করছি।

#