সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের উদ্যোগ। পৌরসভাসহ ২২ গ্রামের পানিবন্দি মানুষকে মুক্তি দিতে মাছখোলায় মটর পাম্প স্থাপন


371 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের উদ্যোগ। পৌরসভাসহ ২২ গ্রামের পানিবন্দি মানুষকে মুক্তি দিতে মাছখোলায় মটর পাম্প স্থাপন
আগস্ট ৮, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার  :
সাতক্ষীরা পৌরসভাসহ জেলা শহরের আশপাশের কমপক্ষে ২২ টি গ্রাম ও গ্রামসংলগ্ন বিলের পানি নিস্কাশনের জন্য মটর পাম্প স্থাপন করা হয়েছে। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসানের একান্ত প্রচেষ্টায় বেতনা পাড়ের মানুষকে স্থায়ী জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি দিতে পানি সেচের এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানাগেছে। কয়েক দিন আগে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মাছখোলা এলাকায় বেতনা নদী পাড়ের জলবদ্ধ এলাকা পরিদর্শন শেষে মাছখোলা বাজারে এক সমাবেশের অবিলম্বে পানি নিস্কাশনের জন্য সবধরণের ব্যবস্থা গ্রহনের প্রতিশ্রুতি দেন। মাত্র ৭২ ঘন্টা যেতে না যেতেই জেলা প্রশাসকের দেয়া সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়ায় এলাকার হাজার হাজার পানিবন্দি মানুষ স্বস্তির নি:শ্বাষ ফেলেছে। এলাকাবাসীর বাদি, অপরিকল্পিত এবং অবৈধভাবে মাছখোলার ডেইয়ের বিলে নোনা পানির চিংড়ি ঘের করার কারণে যে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে সে বিষয়েও জেলা প্রশাসক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।
জানাগেছে, এ বছর মাছখোলা গ্রাম সংলগ্ন ডেইয়ের বিলে স্থানীয় প্রশাসনের কোন ধরণের অনুমতি না নিয়েই  অপরিকল্পিত ভাবে নোনা পানির চিংড়ি ঘের তৈরী করেছে ওই এলাকার হাতেগোনা কয়েক ব্যক্তি।  তারা সরকারি ডাইয়ের খালটিও দখল করে সেখানে মাছ চাষ শুরু করে। ফলে এলাকার পানি নিস্কাশন না হওয়ায় চলতি বর্ষা মৌসুমে সাতক্ষীরা পৌরসভারসহ আশপাশের কমপক্ষে ২২ টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বিষয়টি জানার পর স্থানীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তদন্ত কমিটি গঠনসহ নানা উদ্যোগ গ্রহন করেছে।তারই অংশ হিসেবে সম্প্রতি জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ আব্দুল সাদী বেতনা পাড়ের জলাবদ্ধ এলাকা পরিদর্শন করেন।পরিদর্শন শেষে জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান পানি নিস্কাশনের সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহনের প্রতিশ্রুতি দেন।
জেলা প্রশাসকের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে শুক্রবার মাছখোলা বাজার এলাকায় ৪টি মটর পাম্প স্থাপন করা হয়েছে। সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ আব্দুল সাদী উপস্থিত হয়ে মটর পাম্প উদ্বোধন করেন।
সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, হাতেগোনা কয়েক জন চিংড়ি ঘের মালিকের কারণে এলাকার হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি থাকবে এটা হতে পারে না।পানি নিস্কাশনের জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরণের ব্যস্থা গ্রহন করা হবে। তিনি বলেন, জেলা প্রশাসকের প্রচেষ্টায় ৪টি মটর পাম্প বসানো হয়েছে। আরো ১টি পাম্প শিঘ্রই বসানো হবে। যতো দিন পানি নিস্কাশন না হবে ততো দিন ধরে মটর পাম্পের সাহায্যে পানি সেচ কার্যক্রম চলবে।
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান শনিবার সকালে ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, কয়েক দিন আগে আমি নিজে বেতনা পাড়ের জলাবদ্ধ পরিস্থিতি দেখে এসেছি। ওই এলাকার অসংখ্য মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। যে কোন ভাবে হোক আমি তাদেরকে জলবদ্ধতার কবল থেকে উদ্ধার করতে চাই। জরুরী ভাবে মটর পাম্প বসিয়ে পানি সেচের ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রশাসন সার্বিক পরিস্থিতি মনিটরিং করছে। সেখানে প্রয়োজনীয় সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।