সাতক্ষীরা পৌরসভায় শিঘ্রই ১৯৫ কোটি টাকার জার্মান প্রকল্পের কাজ শুরু হবে


663 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা পৌরসভায় শিঘ্রই ১৯৫ কোটি টাকার জার্মান প্রকল্পের কাজ শুরু হবে
ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
২০১৫ সালের ঐতিহাসিক প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনে (কপ-২১) গ্রিন ক্লাইমেট ফান্ড (জিসিএফ) বোর্ড জাম্বিয়াতে তাদের ১১তম সভায় বাংলাদেশের জন্য ৮০ মিলিয়ন ডলার ( প্রায় ১৯৫ কোটি টাকা ) অনুমোদন করে। এনিয়ে একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। প্রকল্পটি জার্মান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, কেএফডাব্লউ এর ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) বাস্তবায়ন করবে।

এই প্রকল্পের যাবতীয় অর্থ সাতক্ষীরা পৌরসভার উন্নয়নে ব্যয় করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ সরকার। তবে নানা জটিলতার কারনে বিগত ৫ বছরেও এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়নি। সম্প্রতি টিআইবি’র সহযোগিতায় এই প্রকল্পের কাজ শিঘ্রই শুরু হতে যাচ্ছে।

১৯৫ কোটি টাকার এই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য কনসালটেণ্ট নিয়োগ প্রায় শেষ পর্যায়। এলজিইডি কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে প্রকৌশলী নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে। অবকাঠামোগত কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য অতিদ্রুত টে-ার প্রক্রিয়া শুরু হবে।

“ক্লাইমেট রেজিলেন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচারস্ মেইনস্ট্রিমিং ইন বাংলাদেশ” শীর্ষক মতবিনিময় সভায় সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি এসব কথা বলেন।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন টিআই নেপাল চ্যাপ্টারের প্রতিনিধি প্রকৃতি অধিকারী, সাতক্ষীরার প্রবীণ আইনজীবী এ.কে.এম শহীদউল্যাহ, প্রফেসর আব্দুল হামিদ, প্রফেসর ড. দেলারা বেগম, সাংবাদিক কল্যাণ ব্যানার্জি, সাংবাদিক এম.কামরুজ্জামান, সনাক সভাপতি পল্টু বাসার, ফিফা রেফারি তৈয়েব হাসান বাবু প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, সাতক্ষীরায় জলবায়ু ফান্ডের অর্থায়নে যতোগুলো প্রকল্প এ পর্যন্ত হাতে নেয়া হয়েছে অধিকাংশ প্রকল্পের টাকা হরিলুট হয়েছে। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে কোন ধরনের স্বচ্ছতা,জবাবদিহিতা ছিল না। আর এ কারনেই প্রকল্পের কাজে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে। সাতক্ষীরা পৌরসভায় জলবায়ু ফান্ডে যে প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে সে-টি যেনো এমনটি না হয়। সাতক্ষীরা পৌরসভার জনগন যেনো জানতে পারে এই টাকা কোথায় এবং কিভাবে ব্যয় করা হচ্ছে।

তারা আরো বলেন, উপকুলীয় সাতক্ষীরা পৌরসভাকে জলবায়ু সহিষ্ণু শহরে পরিণত করার জন্য ড্রেন নির্মাণ, স্যানিটেশন ও পানি সবরাহ, পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য বরাদ্ধ হওয়া প্রকল্পটির কাজ যেন যথাযথভাবে হয় সেটি নিশ্চিত করতে হবে।

সাতক্ষীরা পৌর মেয়র বক্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন ‘জার্মান সরকারের এই জলবায়ু ফান্ড আনতে কোন টাকা খরচ হয়নি। নানা জটিলতার কারনে হয়তো বরাদ্দ পেতে ৫ বছর সময় লেগেছে। কিন্তু টাকার বিনিময়ে এই ফান্ড আনা হয়নি। বিধায় প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সব ধরনের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা হবে। কোন ধরনের অনিয়ম বা দুর্নীতির আশ্রয় দেয়া হবে না। তিনি বলেন, বাংলাদেশের এ ধরনের প্রকল্প মাত্র একটি। আর সেটি সাতক্ষীরা পৌরসভায় বাস্তবায়ন হচ্ছে। এই প্রকল্পের দিকে সবার আলাদা নজরদারী থাকবে’।

টিআইবি, সনাক সাতক্ষীরা সাতক্ষীরা পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে এই মতোবিনিময় সভার আয়োজন করে। সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র ছাড়াও, সাংবাদিক, পৌরসভার কমিশনারবৃন্দ, পৌর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।