সাতক্ষীরা পৌর আ’লীগের নামে দেওয়া প্রতিবাদ প্রসঙ্গে সাহাদাৎ ও নজরুল এর বক্তব্য


689 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা পৌর আ’লীগের নামে দেওয়া প্রতিবাদ প্রসঙ্গে সাহাদাৎ ও  নজরুল এর বক্তব্য
অক্টোবর ২৩, ২০১৮ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

গত ইং-২২/১০/২০১৮ তারিখে সাতক্ষীরার স্থানীয় তিনটি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত ‘সংবাদে প্রকাশিত বক্তব্যে পৌর আওয়ামীলীগের প্রতিবাদ’ শিরোনামে যে প্রতিবাদটি প্রকাশিত হয়েছে সেটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদ ও প্রতিবাদ দুটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। যার সাক্ষী সাতক্ষীরা সদরের পৌর আওয়ামীলীগের ৯টি ওয়ার্ডের সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদকবৃন্দের উপস্থিতি এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ব্যক্তিবর্গ তার প্রমাণ। পৌর আওয়ামীলীগের ২০ জন নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সহ ১৫ জন, যাহার ছবি সংরক্ষিত আছে। প্রকৃত পক্ষে যারা বুঝতে পেরেছে মনোনয়ন দৌড়ে জনসমর্থন, তৃণমূল নেতৃবৃন্দের মূল্যায়ণে ও জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া নৌকার টিকিট পাচ্ছে না। সাতক্ষীরা সদরে মনোনয়নের দৌড়ে সাতক্ষীরা সদর আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি এগিয়ে আছে সেটি বুঝতে পেরে মহাষড়যন্ত্র শুরু করেছে। মূলত এটা তারই বর্হিপ্রকাশ। একটি প্রবাদ আছে এমন যে, “মাছ না পেয়ে ছিপে কামড় ও খেতে না পেরে ঘুটে দিলাম”। বিগত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে, জেলা পরিষদ নির্বাচনে ও পৌরসভার নির্বাচনে যারা বঙ্গবন্ধুর রক্তের সাথে ও দলীয় নৌকার সাথে বেইমানী করেছিল, যারা গিরগিটির মত রঙ পাল্টে দলের মধ্যে বিভেদ সৃস্টি করে সেই আওয়ামীলীগের নামধারী মুখোশের আড়ালে লুকিয়ে থাকা চক্র আবারো সক্রিয় হয়েছে। পৌর আওয়ামীলীগের একটি অংশের দেওয়া প্রতিবাদ সেটিই প্রমান করে। যেখানে জননেত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়কালে বলেছিলেন, দলীয় এমপিদের বিরুদ্ধে কোন বক্তব্য না দিতে। কিন্তু নেত্রীর সেই নির্দেশ অমান্য করে দলীয় অনুষ্ঠানের নামে স্যাটালাইটে সরাসরি সম্প্রচার ও মাইকে সাতক্ষীরা সদর এমপি রবির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার করেছিল, যারা নেত্রীর নির্দেশ অমান্য করে দলীয় প্রতীক নৌকার সাথে বেইমানী করেছে এবং এখনও বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করছে ঐসব মুখোশধারী নেতাদের এহেন আচরনে আমরা খুবই ক্ষুব্ধ। তাই আমরা সাতক্ষীরা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি/সম্পাদক যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের পক্ষে আমি মোঃ সাহাদাৎ হোসেন দলের স্বার্থে ও নৌকার স্বার্থে এবং আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে বিজয়ের লক্ষ্যে সকল প্রকার অপপ্রচার বন্ধ করার আহবান জানাচ্ছি, এবং সেই সাথে উক্ত মিথ্যা, বানোয়ার্ট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে প্রতিবাদে দেওয়া বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সাতক্ষীরা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি/সম্পাদক ও ওয়ার্ড সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের পক্ষে

(মোঃ সাহাদাৎ হোসেন)
সাধারণ সম্পাদক
পৌর আওয়ামীলীগ, সাতক্ষীরা।
মোবা: ০১৭১১-৫৭২০২৮

 

##

সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের নামে দেওয়া প্রতিবাদ ও সংবাদের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

গত ইং-২২/১০/২০১৮ তারিখে সাতক্ষীরার স্থানীয় তিনটি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত ‘সংবাদে প্রকাশিত বক্তব্যে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিবাদ’ শিরোনামে যে প্রতিবাদটি প্রকাশিত হয়েছে সেটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদ ও প্রতিবাদ দুটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। যার সাক্ষী সাতক্ষীরা সদরের ১৪টি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদক ও বিভিন্ন ওয়ার্ডের সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদকবৃন্দের উপস্থিতি এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ব্যক্তিবর্গ তার প্রমাণ। প্রকৃত পক্ষে যারা বুঝতে পেরেছে মনোনয়ন দৌড়ে জনসমর্থন, তৃণমূল নেতৃবৃন্দের মূল্যায়ণে ও জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া নৌকার টিকিট পাচ্ছে না। সাতক্ষীরা সদরে মনোনয়নের দৌড়ে সাতক্ষীরা সদর আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি এগিয়ে আছে সেটি বুঝতে পেরে মহাষড়যন্ত্র শুরু করেছে। মূলত এটা তারই বর্হিপ্রকাশ। একটি প্রবাদ আছে এমন যে, “মাছ না পেয়ে ছিপে কামড় ও খেতে না পেরে ঘুটে দিলাম”। বিগত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে, জেলা পরিষদ নির্বাচনে ও পৌরসভার নির্বাচনে যারা বঙ্গবন্ধুর রক্তের সাথে ও দলীয় নৌকার সাথে বেইমানী করেছিল, যারা গিরগিটির মত রঙ পাল্টে দলের মধ্যে বিভেদ সৃস্টি করে সেই আওয়ামীলীগের নামধারী মুখোশের আড়ালে লুকিয়ে থাকা চক্র আবারো সক্রিয় হয়েছে। পৌর আওয়ামীলীগের একটি অংশের দেওয়া প্রতিবাদ সেটিই প্রমান করে। যেখানে জননেত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়কালে বলেছিলেন, দলীয় এমপিদের বিরুদ্ধে কোন বক্তব্য না দিতে। কিন্তু নেত্রীর সেই নির্দেশ অমান্য করে দলীয় অনুষ্ঠানের নামে স্যাটালাইটে সরাসরি সম্প্রচার ও মাইকে সাতক্ষীরা সদর এমপি রবির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার করেছিল, যারা নেত্রীর নির্দেশ অমান্য করে দলীয় প্রতীক নৌকার সাথে বেইমানী করেছে এবং এখনও বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করছে ঐসব মুখোশধারী নেতাদের এহেন আচরনে আমরা খুবই ক্ষুব্ধ। তাই আমরা সাতক্ষীরা সদর উপজেলা সহ ১৪টি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি/সম্পাদক ও ওয়ার্ড সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের পক্ষে আমি মোঃ সাহাদাৎ হোসেন দলের স্বার্থে ও নৌকার স্বার্থে সকল প্রকার অপপ্রচার বন্ধ করার আহবান জানাচ্ছি, এবং সেই সাথে উক্ত মিথ্যা, বানোয়ার্ট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে প্রতিবাদে দেওয়া বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা ও সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি/সম্পাদক ও ওয়ার্ড সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের পক্ষে

(সরদার নজরুল ইসলাম)
সাংগঠনিক সম্পাদক
সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ, সাতক্ষীরা।
মোবা: ০১৭১৪-৬৯৫৩৮১