সাতক্ষীরা পৌর দীঘিতে ফ্রি-ষ্টাইলে মাছ শিকারে ব্যস্ত , এরা কারা ?


424 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা পৌর দীঘিতে ফ্রি-ষ্টাইলে  মাছ শিকারে ব্যস্ত , এরা কারা ?
অক্টোবর ১১, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরা পৌরসভা কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়েই পৌর দীঘিতে হুইল দিয়ে শত শত মানুষের সামনে প্রকাশ্যে মাছ শিকার করা হচ্ছে। সাধারণ মানুষের জিজ্ঞাসা , রোববার সকাল সাড়ে ৭ টা থেকে মাছ শিকারে ব্যস্ত এই প্রভাবশালীরা কারা ? কি এদের পরিচয় ? কোন শক্তিতে বলিয়ান হয়ে এরা ফ্রি-ষ্টাইলে পৌরসভার মালিকানাধীন দীঘিতে এভাবে মাছ শিকার করছে ? এই জিজ্ঞাসা সাধারণ মানুষের ।

সাতক্ষীরা পৌরসভার চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম এ জলিলের কাছে জানতে চাইলে তিনি রোববার সকাল ৯ টায় ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, পৌর দীঘিতে মাছ শিকার করার জন্য কাউকে অনুমতি দেয়া হয়নি। কারা পৌরসভার অনুমতি না নিয়ে মাছ শিকার করছে তা জরুরী ভিত্তিতে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

রোববার সকাল ১০ টা। পৌর দীঘির পাড়ে গিয়ে দেখা গেলো, সকাল ৭ টা থেকে যারা মাছ শিকার করছে তার তো আছেই, নতুন করে যোগ হয়েছে আরো ২ জন মাছ শিকারি। তাদের মাছ শিকার দেখার জন্য সেখানে রীতিমত শতাধিক মানুষের ভীড় জমেছে।

এ ব্যাপারে সকাল ১০ টা ১০ মিনিটে (অবহিত করার ১ ঘন্টা ১০ মিনিট পর ) পৌর চেয়ারম্যান এম এ জলিলের মুঠো ফেনে আবারও ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম সম্পাদকের রিং। পৌর পিতার কাছে জানতে চাওয়া হলো, অবৈধ মাছ শিকারীদের বিরুদ্ধে কি পদক্ষেপ নিয়েছেন ? একটু থমকে গিয়ে বললেন,  পৌরসভা থেকে লোক পাঠিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। পৌর দীঘি পাহারাদাররা কোথায় জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাবা বোঝেন তো, কেউ আর কথা শুনছে না।

স্থানীয়রা জানায়, সাতক্ষীরা পৌরসভার মালিকানাধীন সাতক্ষীরা জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রের এই পৌর দীঘি। এ-টি রক্ষানাবেক্ষণের জন্য সার্বক্ষনিক পৌরসভার বেতনভূক্ত কয়েক জন কর্মচারী রয়েছে। কিন্তু তারা কোথায় ? পৌর চেয়ারম্যানের কাছে এই জিজ্ঞাসা সাধারণ মানুষের। কি জবাব দেবেন সাতক্ষীরা পৌর পিতা এম এ জলিল ?

এভাবে প্রকাশ্যে দিনের বেলা শত শত মানুষের সামনে পৌর কর্তৃপক্ষকে না বলে ফ্রি-স্টাইলে হুইল, মাছ ধরার খাদ্য নিয়ে মাছ শিকারের বিষয়টি নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সাতক্ষীরা পৌর দীঘির পারে পৌরসভার জায়গাই বসবাসরত পৌরসভার স্টাফ আব্দুর আজিজ ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, তিনি সকাল ৯ টার দিকে বিষয়টি জানতে পেরে তাদেরকে মাছ শিকার না করার জন্য বলেন। কিন্তু মাছ শিকারীরা তাকে জানিয়েছেন, পৌরসভার কমিশনার আয়নুল ইসলাম নান্টার মৌখিত অনুমতি নিয়েই না-কি তারা মাছ শিকার করছে। বিধায় তিনি কোন পদক্ষেপ নিতে পারেননি।

এ ব্যপারে পৌর কমিশনার আয়নূল ইসলাম নান্টার মুঠো ফোনে একাধিকবার রিং করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।