সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নব নির্বাচিতদেরকে কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের অভিনন্দন


349 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নব নির্বাচিতদেরকে কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের অভিনন্দন
ডিসেম্বর ৭, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত সভাপতি দৈনিক পত্রদূতের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এড. আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক ভয়েস অব সাতক্ষীরা’র সম্পাদক এম কামরুজ্জামান প্যানেলের নির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন সভাপতি এম আজাদ হোসেন সহ-সভাপতি এইচ এম এ হাসেম, সাধারণ সম্পাদক পলাশ কর্মকার, সহ-সাধারণ সম্পাদক এইচ এম জিয়াউর রহমান, কোষাধ্যক্ষ জগদীশ দে, সাংগঠনিক সম্পাদক মজুমদার পলাশ, দপ্তর সম্পাদক এম আজিজুর রহমান, প্রচার সম্পাদক আঃ সবুর আল-আমীন, ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক স ম নজরুল ইসলাম, কার্যকরী সদস্য বদরুল আলম, খান রফিকুল ইসলাম, সদস্য এম এম কামরুল ইসলাম প্রমুখ।

কার্যক্রমহীন কপিলমুনি পাবলিক লাইব্রেরী!
পলাশ কর্মকার, কপিলমুনি (খুলনা) ঃ
“বই পড়া ছাড়া সাহিত্য চর্চার উপায়ান্ত নেই। ধর্মের চর্চা চাই কি মন্দিরের বাইরেও করা চলে, চর্শনের চর্চা গুহায়, নীতির চর্চা ঘরে এবং বিজ্ঞানের চর্চা জাদু ঘরে, কিন্তু সাহিত্য চর্চার জন্য চাই লাইব্রেরী”। বিশিষ্ট লেখক প্রমথ চৌধুরীর এ অন্যতম বাণীকে শিরধার্য করে কপিলমুনি এলাকার সকল শ্রেণী পেশার মানুষের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও প্রাক্তন নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এএফএম মঞ্জুর কাদিরের একান্ত সহযোগীতায় দীর্ঘদিনের লালীত স্বপ্নের সফলতার ফল হিসাবে খুলনার কপিলমুনিতে গড়ে ওঠে কপিলমুনি পাবলিক লাইব্রেরী। আলোকিত খাঁটি মানুষ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠা ভাল হলেও পরিচালনা পর্ষদের কারনে যেন শেষ অবধি তেল সলতে থাকতেও নিভে যেতে বসেছে জ্ঞানের আলো ছড়ানো সেই প্রদীপটি।
তথ্যানুসন্ধানে জানাগেছে, সময়ের প্রয়োজনে সৃজনশীল মানুষের সামাজিক দায়বদ্ধতার ফলশ্রুতিতে ২০০৩ সালে ২২ আগষ্ট জ্ঞানার্জন আর মননশীল সাহিত্য চর্চার আলোক শিখা প্রজ্জ্বলনে কপিলমুনি পাবলিক লাইব্রেরী প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া হয়। তৎকালীন পাইকগাছা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ডঃ এএফএম মনজুর কাদির এ প্রতিষ্ঠানটির শীলান্যাস করেন। তার সাহসী অভিযাত্রায় এলাকার ১৬জন বিশিষ্ট ব্যক্তির সমন্বয় গঠিত হয় ‘কপিলমুনি পাবলিক লাইব্রেরী’র প্রথম আহবায়ক কমিটি ও গঠনতন্ত্র প্রনয়ন সাব-কমিটি। সুনিদৃষ্ট নীতিমালার ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠানটির অগ্রযাত্রার দিক নির্দেশনায় গঠনতন্ত্র প্রনয়নে সাব-কমিটি আন্তরিক সহযোগীতা করেন। যার ফলশ্রুতিতে গত ইং ২৯ সেপ্টেম্বর-২০০৩ উপস্থিতিতে খসড়া গঠনতন্ত্র আহবায়ক কমিটির সকল সদস্যদের বুদ্ধি দীপ্ত পরামর্শের মধ্যদিয়ে চুড়ান্ত গঠনতন্ত্র করা হয়। ২০অক্টোবর ২০০৩ সালে ভিত্তি প্রস্থর স্থাপনের মাধ্যমে লাইব্রেরীর যাত্রা শুরু হয়। পরিচালনা পর্ষদের মেয়াদ দীর্ঘ প্রায় অর্ধযুগ আগে উত্তীর্ণ হয়েছে। ২০অক্টোবর ’০৩ সালে লাইব্রেরী যাত্রা শুরু করে আহবায়ক কমিটি ২২ আগষ্ট ২০০৩সাল পর্যন্ত প্রতিষ্ঠনটি পরিচালনা করেন। ২৭সদস্য নিয়ে ১মে ’০৪ প্রথম কার্যকরী পরিষদ গঠন হয়। ২০০৭সালে ২৬ অক্টোবর দ্বিতীয় কার্যকরী পরিষদ গঠন করা হয়। গঠনতন্ত্র মতে কার্যকরী পরিষদের মেয়াদ কাল ৩ বছর করে। তথ্যমতে, ৫বছর আগে মেয়াদ উত্তীর্ণ কার্যকরী পরিষদ দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন। বর্তমানে নিভু নিভু প্রদীপের ন্যায় লাইব্রেরীটি কোন রকমে টিক টিক করছে। নষ্ট হতে চলেছে শত শত বই, আসবাসপত্রসহ অতি মূল্যবান জিনিস। এখানেই শেষ নয়, ভরা বৃষ্টি মৌসুমে তালাবদ্ধ থাকা লাইব্রেরীর আসবাবপত্র গুলো দেয়ালের এক কোনে সরিয়ে রেখে চালানো হয় দর্জ্জির কাজ। প্রতিষ্ঠানটির পুরো বিষয় নিয়ে সংবাদকর্মীরা কয়েকদিন যাবৎ সংবাদ সংগ্রহ করতে থাকে এমন খবর জানাজানি হলে অতি সম্প্রতি লাইব্রেরী থেকে দর্জ্জি প্রতিষ্ঠানকে সরিয়ে দেওয়া হয়। এ নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। আলোকিত মানুষের মাঝে দেখা দেয় চরম ক্ষোভ।
পদাধিকার বলে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সহ সভাপতি, সাংবাদিক শেখ আব্দুস সালামকে সাধারণ সম্পাদকের দয়িত্ব দেওয়া হয়। লাইব্রেরী প্রতিষ্ঠার সময় সভাপতি ডঃ এএফএম মনজুর কাদির লাইব্রেরীটিতে একজন লাইব্রেরীয়ান নিয়োগের প্রস্তাব করে সে সময় ৭ হাজার টাকার বই, ৬ হাজার টাকার বুক সেলফ ও ৫ হাজার টাকা লাইব্রেরীয়ানের বেতন বাবদ নগদ অর্থ প্রদান করেন। এবিষয়ে পাইকগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পদাধিকার বলে লাইব্রেরীর সভাপতি মোহাম্মদ কবির উদ্দীনের নিকট প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান ঝিমিয়ে পড়া কার্যক্রমের কথা মুঠোফোনে তুলে ধরলে  তিনি বলেন, আমি শিঘ্রই কপিলমুনিতে এসে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেব।
###

কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবে মাসিক সভা অনুষ্ঠিত
কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি :
কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের মাসিক সভা সোমবার দুপুর ১২ টায় ক্লাবের সভাপতি এম আজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক পলাশ কর্মকার, কোষাধ্যক্ষ জগদীশ দে, দপ্তর সম্পাদক এম আজিজুর রহমান, প্রচার সম্পাদক আঃ সবুর আল-আমীন, কার্যকরী সদস্য খান রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। সভায় কোষাধ্যক্ষ জগদীশ দে মাসিক আয় ব্যয়ের হিসাব দাখিল করেন।