সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারন সভা : ৪ঘন্টার প্রাণবন্ত আলোচনায় কিছু সিদ্ধান্ত


606 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারন সভা :  ৪ঘন্টার প্রাণবন্ত আলোচনায় কিছু সিদ্ধান্ত
মে ২৪, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

চার ঘন্টারও বেশি সময় ধরে প্রাণবন্ত আলোচনা ও যুক্তিতর্ক প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারন সভা। জ্যৈষ্ঠের  প্রচন্ড দাবদাহ ও দীঘির ধারের লু হাওয়ার মধ্যে বিদ্যুতের ‘এই আছি এই নেই’ খেলার লুকোচুরিতে  নাস্তানাবুদ হয়েও হল ভর্তি সংবাদ কর্মীরা  এতে অংশ নেন।

বুধবার সকালে প্রেসক্লাব সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে শুরু হয় সাধারন সভা। ৭৬ জন সাধারন সদস্যের মধ্যে হাতে গোনা কয়েকজন ছাড়া  অন্যরা উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশ নেন।

এ সময় ট্রেজারি বেঞ্চে আরও উপস্থিত ছিলেন সাধারন সম্পাদক আবদুল বারী ও কোষাধ্যক্ষ ফারুক মাহবুবুর রহমান। সভাপতি তার স্বাগত বক্তব্যে প্র্রেসক্লাবের সকল সদস্যকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ঐক্যবদ্ধ থেকে ক্লাবকে এগিয়ে নেওয়া এবং সাংবাদিকতার মান উন্নয়ন ও উৎকর্ষ ষাধনে সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্ব পালনের আহবান জানান।

অপরদিকে সাধারন সম্পাদক তার বক্তব্যে সিলেটে শিক্ষাভ্রমন ও অন্যান্য কর্মকান্ড সম্পর্কে ব্যাখ্যা দেন।  গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত সাধারন সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তসমূহ দৃঢ়করনের পর শুরু হয় এজেন্ডা ভিত্তিক আলোচনা।

এর আগে দেশে বিদেশে মৃত্যুবরনকারী সাংবাদিকদের স্মরণে  এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

সভায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবকে একটি বহুতল ভবনে উন্নীত করনে গৃহীত পদক্ষেপসমূহ নিয়ে আলোচনা হয়। এ ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করার একটি প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এ ছাড়া উত্তরের নতুন ভবনটির দোতলার কাজ অচিরেই শুরু করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের বার্ষিক প্রকাশনার কাজ শুরু করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলা হয় দীর্ঘদিন আগে সিদ্ধান্ত নিয়েও তা বাস্তবায়ন করা যায়নি। আলোচনার মাধ্যমে প্রেসক্লাবের শৃংখলা ভঙ্গ,  টিভি ক্যামেরাপার্সনদের জন্য আচরন বিধি প্রনয়ণ,

গঠনতান্ত্রিক বিধি অনুযায়ী সদস্যপদ বাতিল বিষয়ে বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এছাড়া সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের স্বার্থবিরোধী যে কোনো তৎপরতা সম্পর্কে সকলকে সতর্ক করে দেওয়া হয়। সভায় বেশ কয়েকটি সাংগঠনিক বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আলোচনায় অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে রয়েছেন তিন সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সুভাষ চৌধুরী ও মনিরুল ইসলাম মিনি, সহসভাপতি কালিদাস কর্মকার, সাবেক সহসভাপতি আবদুল ওয়াজেদ কচি, চার সাবেক সাধারন সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপী,

এম কামরুজ্জামান, মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জ্বল ও মো. রুহুল কুদ্দুস। পর্যায়ক্রমে আলোচনায় আরও অংশ নেন দৈনিক দক্ষিনের মশাল সম্পাদক অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহি, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো. গোলাম সরোয়ার, ড. দিলীপ কুমার দেব, শরিফুল্লাহ কায়সার

সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রবিউল ইসলাম, আবুল কাসেম, মনিরুল ইসলাম মনি, মোশাররফ হোসেন, আবদুস সামাদ, শেখ মাসুদ হোসেন, শামীম পারভেজ, আমিরুজ্জামান বাবু, মো. শহিদুল ইসলাম, আহসানূর রহমান রাজীব প্রমুখ।
##