সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে অসলে মেম্বরের সংবাদ সম্মেলন


346 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে অসলে মেম্বরের সংবাদ সম্মেলন
জানুয়ারি ১৪, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
ডিবি পুলিশের এএসআইকে হত্যা প্রচেষ্টা মামলার আসামি, রাজাকার জল্লাদ খালেক মন্ডলের ক্যাডার ও মাদক ব্যবসায়ী জামির হোসেন মামলা থেকে বাচঁতে ভোল পাল্টে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের নেতা বলে প্রচার দিচ্ছেন।

বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে সদর উপজেলার বৈকারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ জামির হোসেনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বৈকারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ।

তিনি বলেন, রাজাকার খালেক মন্ডলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন ও নিজের মাদক ব্যবসা পাকাকরণে  প্রশাসনের চোখ ফাকি দিতে জামির হোসেন সম্প্রতি এলাকায় বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত ফেস্টুন ও ব্যানার টাঙিয়েছেন। রাজাকার খালেক মন্ডলের যুদ্ধাপরাধ মামলার সাক্ষী আসাদুজ্জামান অছলে, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ, নজর আলী, রমজান আলী, গোলাম হোসেন, আইজদ্দীনসহ অন্যান্য সাক্ষীরা যাতে সাক্ষ্য দিতে না পারে- সেজন্য জামির হোসেন জামায়াতের কাছ থেকে বিপুল অর্থ নিয়ে এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য সাক্ষীদের বিরুদ্ধে কুৎসা রটাচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয়, জামির হোসেন ২০১৪ সালের ১১ নভেম্বর মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনাকালে সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের এএসআই আমিনুল ইসলামসহ এক কনস্টেবলকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। ওই মামলায় তার বিরুদ্ধে সম্প্রতি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। ওই মামলা থেকে বাচতে ও ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী জামায়াতের সহিংসতার অভিযোগ আড়াল করতে জামির ভোল্ট পাল্টে সদর উপজেলা বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের প্রচার সম্পাদক পদ ব্যবহার করে বঙ্গবন্ধুর ছবি ব্যবহার করে ফেস্টুন ও ব্যানার টাঙিয়েছেন। এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির কাছে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে শিবির ক্যাডার জামির হোসেনকে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়েছে।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন- সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হাসানুল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান অছলে, বৈকারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আফছার আলী প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ জানুয়ারি জামির হোসেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তার বিরুদ্ধে পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে শিবির করা সম্পর্কিত তথ্য মিথ্যা বলে দাবি করেন এবং আসাদুজ্জামান অসলেসহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন। এর একদিন পরেই জামির হোসেনের বিরুদ্ধে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।