সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক শেখ আবদুস সাত্তারের স্মরণ সভা


285 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক শেখ আবদুস সাত্তারের স্মরণ সভা
সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

॥ বিশেষ প্রতিনিধি ॥
————————-
তিনি আমাদের মধ্যে ‘গুরু সাংবাদিক’ হিসাবে বেশ পরিচিত ছিলেন। একজন সংগঠক হিসাবে তার তুলনা তিনি নিজেই । সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কল্যাণ তহবিলের যাত্রা শুরু হয় তার উদ্যোগেই । তিনি তার কাজের মধ্য দিয়ে এভাবেই আমাদের মাঝে বেঁচে আছেন,বেঁচে থাকবেন।
তিনি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক। জীবনের প্রথম সোপানে নিজেকে একজন শিক্ষক হিসাবে সমাজে দাঁড় করিয়ে শিক্ষার আলো ছিটিয়েছেন। পরবর্তীকালে সাংবাদিকতাকে বেঁচে নিয়ে জীবনের শেষ সময়টুকু কাটিয়েছেন। তবে মাত্র ৭০ বছর বযসে বড্ড অসময়ে চলে গেছেন তিনি।
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের বিভিন্ন সময়ের কার্যনির্বাহী কমিটির অর্থ সম্পাদক অথবা সদস্য দৈনিক পূর্বাঞ্চলের সাবেক ব্যুরো প্রধান আবদুস সাত্তারের ষষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকীতে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব আয়োজিত একন স্মরণ সভায় এসব কথা উঠে আসে। তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন তিনি ছিলেন অতিথিপরায়ণ, ভোজন রসিক , সদালাপী, নিরহংকার এবং কর্মপ্রিয় মানুষ। দিনের বেশির ভাগ সময়ে তাকে কোনো না কোনো কাজে বিচরন করতে দেখা যেতো। রাতেও বাড়িতে অথবা বাড়ির বাইরেও তিনি কথনও অলস সময় পার করতেন না। এমন একজন মানুষ সত্যিই সমাজের জন্য অনুকরনীয় দৃষ্টান্ত।
শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত শোকসভায় সভাপতিত্ব করেন প্রেসক্লাব সভাপতি অ্যাড. আবুল কালাম আজাদ। প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আবদুল বারীর সঞ্চালনায় স্মরণ সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের চার সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী , অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, অধ্যক্ষ মো. আনিসুর রহিম ও মনিরুল ইসলাম মিনি, তিন সাবেক সাধারন সম্পাদক এম কামরুজ্জামান, মোজাফফর রহমান ও মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জ্বল, দৈনিক দৃষ্টিপাত সম্পাদক জিএম নুর ইসলাম, ভোরের কাগজের ড. দিলীপ কুমার দেব , প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক ফারুক মাহবুবুর রহমান, প্রয়াত আবদুস সাত্তারের জ্যেষ্ঠ পুত্র দৈনিক নিউ নেশনের এবিএম মোস্তাফিজুর রহমান, বাংলাদেশ প্রতিদিনের মনিরুল ইসলাম মনি, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির আবুল কাসেম প্রমুখ সাংবাদিক।
সাংবাদিক আবদুস সাত্তার ছিলেন একজন সরল সহজ ও সাদাসিদে মানুষ উল্লেখ করে বক্তারা বলেন তিনি মানুষকেভালো কাজে সংগঠিত করার ক্ষমতা রাখতেন। মানুষের আপদে বিপদেতিনি এগিয়ে আসতেন। নিজেকে সামাজিক পরিমন্ডলে সম্পৃক্ত করে তিনি গনসংযোগে শীর্ষ স্থানীয় ছিলেন। অনেককে তিনি সাংবাদিকতার পেশায় নিয়ে এসেছেন জানিয়ে তারা আরও বলেন তিনি নিজেও সাধারন মানুষের সুখদুঃখের কথা নিজের পত্রিকায় তুল ধরতেন। তিনি সমবায় সমিতি, বিআরডিবি, পল্লী বিদ্যুত সমিতিসহ বিভিন্ন আথিক সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে নিজেকে একজন সেবক হিসাবে গড়ে তুলতে সক্ষম হন। সততা ছিল তার পুঁজি, কর্মপ্রবনতা ছিল তার চলার পথ। তিনি ছিলেন একজন নিবেদিত প্রাণ। তিনি জীবনব্যাপী মানুষের সেবা করে গেছেন।
সাংবাদিকরা তার প্রতি পূর্ন শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে আরও বলেন ‘ আমরা তাকে স্মরণে রাখতে চাই। তার চলার পথ ধরে চলতে চাই আমরাও।