সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন : দেনার টাকা পরিশোধের পরও বাড়তি টাকার চাপ !


351 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন : দেনার টাকা পরিশোধের পরও বাড়তি টাকার চাপ !
নভেম্বর ৯, ২০১৫ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
দেনার টাকা পরিশোধ করার পরও বাড়তি টাকার চাপ ও টাকা না দিলে হত্যা হুমকির প্রতিবাদে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তালার তেতুলিয়া গ্রামের মৃত শেখ আফিল উদ্দীনের ছেলে শেখ আবুল কাশেম (৬০)।

সোমবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন,  বিগত কয়েক বছর পূর্বে হাওলাত হিসেবে একই গ্রামের মৃত আমির আলীর ৫ ছেলে যথাক্রমে জিল¬ুর সরদার (জিল¬াল), রিয়াজুল সরদার, মশিয়ার সরদার, মোশরেকুল সরদার ও সোহরাব সরদার এর কাছ থেকে দেড় লক্ষ টাক গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে চুক্তিমোতাবেক তিনি টাকা পরিশোধও করেন। এছাড়া টাকা পরিশোধ করার সময় স্ট্যাম্পে তাদের টাকা বুঝিয়া পেয়েছি মর্মে তাদের স্বাক্ষর রয়েছে। কিন্তু তাদের মধ্যে ২ ভাই রিয়াজুল সরদার ও জিল¬ুর সরদার, তার কাছে আরো ৪ লক্ষ টাকা দাবি করে আসছে। তিনি কিসের টাকা জানতে চাইলে বলেন যেটা দিয়েছো সেটা তো মূল টাকা। সুদের টাকা কে দেব? । এর সুদ হয়েছে ৪ লক্ষ টাকা। তাদের দাবিকৃত ৪ লাখ টাকা না দিলে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে হত্যা করে গুম করে দেবে। বর্তমান প্রশাসন নাকি তাদের হাতে।  বাড়িতে তিনি আর তার স্ত্রী ছাড়া আর কেউ থাকে না। যেকারণে তাদের ভয়ে বর্তমানে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এদিকে গত ৬ নভেম্বর-১৫ তালা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। যার নং- ১৮৫

তিনি আরো বলেন, এখান থেকে কয়েক বছর পূর্বে তারা ছিল ভূমিহীন। বর্তমানে তাদের মধ্যে ওই ২ ভাই রিয়াজুল ও জিল¬াল লক্ষ লক্ষ টাকার মালিক বনে গেছে। অতীতে তারা ডাকাতির সাথে জড়িত ছিলো। ৩ বছর পূর্বে তাদের ৫ভাই মিলে মাগুরা গ্রামের মজিদ মেম্বরের বাড়িতে ডাকাতি করতে যায়। কিন্তু সেই বোমা তাদের ভাই শাহাদাত এর মাথায় লেগে সে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরবর্তীতে এলাকার জনপ্রতিনিধিদের ম্যানেজ করে বাকীরা আবার এলাকায় ফিরে আসে। এলাকায় ফিরে এসে তারা নিরীহ মানুষকে জিম্মি করে বিভিন্ন প্রকার অপকর্ম অব্যাহত রেখেছে। তারা দিনের বেলায় স্থানীয় বাজারে সময় কাটায়। অথচ তারা রাজকীয়ভাবে ঘুরে বেড়ায়। আর এলাকার মধ্যে যত প্রকার অপকর্ম রয়েছে তাতে তাদের ইন্ধন রয়েছে। তারা বর্তমানে এতই দূর্ধষ যে তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে পারে না।

এব্যাপারে তাদের হাত থেকে রক্ষা পেতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন অসহায়  বৃদ্ধ শেখ আবুল কাশেম।