সাতক্ষীরা মেডিকেলের পিসিআর ল্যাব সিলগালা


703 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা মেডিকেলের পিসিআর ল্যাব সিলগালা
জুলাই ২৯, ২০২১ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

ডেস্ক রিপোর্ট ::

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অবস্থিত আরটি পিসিআর ল্যাবটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। ল্যাব থেকে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় আশঙ্কায় পিসিআর ল্যাবটি সিলগালা করা হয়। মঙ্গলবার থেকে আগামী তিনদিন এই ল্যাবটি বন্ধ থাকবে। তিনদিন পর ল্যাবটি জীবাণুমুক্ত হলে ফের এই ল্যাবে করোনা পরীক্ষা শুরু করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য দপ্তরের খুলনা বিভাগের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) ডা: মুরশিদ।
এদিকে ল্যাবের ফ্রিজে জমে থাকা নমুনাগুলো পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
সাতক্ষীরা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাবে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে সোমবার প্রথম দফা পরীক্ষার সময়। এ সময় ল্যাবে দেয়া সব নমুনার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ল্যাবে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে-এই সন্দেহে ল্যাবের দেওয়াল থেকে নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করা হলে এই পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। পরে ল্যাবটি বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দ্রুত ল্যাবটি সিলগালা করে দেয়।
সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা: হুসাইন সাফায়াত ল্যাব বন্ধ থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করে বুধবার বিকেলে বলেন, ইতোমধ্যে ল্যাবটি ভাইরাসমুক্ত করার কাজ চলছে। শনিবার পুনরায় এই ল্যাবে নমুনা পরীক্ষার জন্য চেষ্টা করা হবে। ফল সন্তোষজনক হলে ল্যাব চালু রাখা হবে। ফল সন্তোষজনক না হলে ল্যাবটি আরও দু’দিন বন্ধ রাখতে হতে পারে বলে তিনি জানান।
সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আরটি পিসিআর ল্যাবটি গত দুই মাস ধরে সাতক্ষীরাসহ যশোর, মাগুরা ও নড়াইলের করোনা পরীক্ষার জন্য একমাত্র ভরসা হিসেবে কাজ করে। এই ল্যাবে প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৯৪টি নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও প্রতিদিন দুই বা ৩ শিফট দ্বিগুণের বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।
এদিকে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে ল্যাবের ফ্রিজে জমে থাকা পাঁচ শতাধিক নমুনা পরীক্ষা নিয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছে। খুলনা পিসিআর ল্যাব কর্তৃপক্ষ এই নমুনা নিতে অস্বীকার করায় এই নমুনাগুলো পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সাতক্ষীরার ল্যাবে জমে থাকা নড়াইল ও মাগুরা জেলা থেকে পাঠানো বিপুল পরিমাণ নমুনা ঈদের ছুটিতে পরীক্ষা করে জট অনেকটা কমিয়ে আনা হয়েছে বলে সিভিল সার্জন জানিয়েছেন।

#