সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের মানববন্ধন : প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি


515 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের মানববন্ধন : প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি
নভেম্বর ২, ২০১৫ ফটো গ্যালারি শিক্ষা সাতক্ষীরা সদর স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

ইব্রাহিম খলিল/আব্দুর রহমান মিন্টু :
সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ অনতিবিলম্বে ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট পূর্ণঙ্গরুপে চালু, না হলে অন্যকোন পূর্ণঙ্গ মেডিকেল কলেজে ছাত্রছাত্রীদের স্থানান্তর ও যতদিন চালু হচ্ছে না ততদিন ক্লাস, আইটেম, কার্ড টার্ম, ওয়ার্ড এবং সকল কার্যক্রম বর্জন চলবে এই তিন দফা দাবীতে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসুচি ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেছে।

সোমবার সকাল ১০ টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেন।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন ৫ম বর্ষের ছাত্র আলমগীর হোসেন, মিজানুর রহমান, সাবরিন সরোয়ার, পরিন আক্তার, আতিকুর রহমান, মিনাক কুমার বিশ্বাস, আহসান হাবিব, আযমল হোসেন, ব্রতি প্রমা বিপ্লব, সাব্রিন সারোয়ার, প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ২০১১ সালে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ চালু হলেও আজও পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গরুপে চালু হয়নি। শুধুমাত্র মেডিসিন ওয়ার্ডটি ৩০ শয্যা নিয়ে নামমাত্র লোকবল নিয়ে চালু হয়েছে যা আমাদের ক্লিনিক্যাল ক্লাসের জন্য যথেষ্ট নয়। বহুবার প্রতিশ্রুতি দেখানো হলেও তার কোন বাস্তব রুপ দেখা যায়নি।

 

33

বক্তারা আরও বলেন, চুড়ান্ত পেশাগত পরীক্ষার জন্য ৫০০ শয্যার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পূর্ণঙ্গরুপে চালু থাকা বাধ্যতামুলক। বর্তমানে মেডিকেল কলেজর অবস্থা বিবেচনা করলে দেখা যায় অদুর ভবিষ্যতে এটি চালু করা সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনার পর ২০১১ সালে সেপ্টেম্বরে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চালু হয়। বর্তমানে এখানে ২০৮ জন ছাত্রছাত্রী অধ্যায়নরত রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অনতিবিলম্বে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালটি ৫০০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালরুপে চালু করা প্রয়োজন।
সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের ৫ম বর্ষের ছাত্র আলমগীর হোসেন জানান, তিনদফা দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলতে থাকবে। দাবীগুলো হলো সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল পূর্ণঙ্গরুপে চালু করতে হবে, হাসপাতাল চালু না হলে অতি দ্রুত আমাদের পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল কলেজে স্থানান্তার করতে হবে ও যতদিন চালু হচ্ছেনা ততদিন আমরদের ক্লাস, আইটেম, কার্ড, ওয়ার্ড এবং সকল কার্যক্রম বর্জন থাকবে।
মানববন্ধন শেষে ছাতছাত্রীরা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী, স্বাস্থ্যসচীব, স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের মহাপরিচালক ও খুলনা বিভাগীয় কমিশনার বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেন।

এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. হাবিবুর রহমান জানান, শিক্ষার্থীদের দাবী গুলো যৌতিক। ছাত্রছাত্রীদের দাবীগুলো মানা না হলে তাদের ভবিষ্যতে ক্ষতির আশংখা রয়েছে। শিক্ষার্থীদের দাবির বিষয়টি ইতোমধ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।