সাতক্ষীরা সদরের পাঁচরখিতে গৃহবধূ হত্যা !


784 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা সদরের পাঁচরখিতে গৃহবধূ হত্যা !
এপ্রিল ২৫, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
সাতক্ষীরা সদরের পাঁচরখি  এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। ওই গৃহবধূর নাম শান্তা খাতুন(১৮)। শান্তা  কলারোয়া উপজেলার কেড়াগাছী গ্রামের নজরুল ইসলামের কন্যা।
নিহত শান্তা খাতুনের বাবা নজরুল ইসলাম জানান, তার কন্যা শান্তা খাতুনকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।
তিনি আরো জানান, গত ৬মাসপূর্বে সদর উপজেলার পাঁচরখি গ্রামের আদম আলীর ছেলে ইসমাইল হোসেনের সাথে পারিবারিক ভাবে শান্তার বিয়ে দেওয়া হয়। বিয়ের সময় ছেলেকে  যৌতুক হিসেবে ঘড়ি, আংটি, বাইসাইকেলসহ নগত ২লক্ষ টাকা পরিশোধ করতে হয়। সম্প্রতি শান্তার শ্বাশুড়ি রাশিদা বেগম এবং ননোদ ববিতা ১লক্ষ টাকা  যৌতুক দাবী করে শান্তার উপর নির্যাতন চালাতে থাকে। শান্তার উপর নির্যাতনের কথা তার পিতাকে জানালে, নজরুল ইসলাম আগামী জৈষ্ঠ মাসের দিকে আবারো যৌতুকের ১লাখ টাকা দিতে রাজি হন।  রবিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নজরুল ইসলাম শান্তার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে, জামাতার বাড়িতে যেয়ে কন্যার মৃতদেহ ঘরের মধ্যে পড়ে থাকতে দেখেন এবং ওই ঘরের আড়াতে  লাল সবুজ রঙের একটি ওড়না বাঁধা ছিলো বলে নজরুল ইসলাম জানান। শান্তার মৃত্যুর ঘটনার পর থেকে তার স্বামী, শ্বাশুড়ী ও ননোদ পলাতোক রয়েছেন ।

এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আবুল কালাম আজাদ বলেন, সকালে মৃত্যুর খবর পেয়ে ঘটনা স্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে শান্তা খাতুনের আত্মহত্যা বলে ধারনা করা হচ্ছে। মৃত্যুর সঠিক কারণ নির্ণয় করতে ময়না তদন্ত করা হয়েছে। ডাক্টারী রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর কারণ সঠিক ভাবে বলা যাবে।