সাতক্ষীরা সদরে ও কলারোয়ায় সাড়ম্বরে গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার যুবকেন্দ্র উদ্বোধন


300 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরা সদরে ও কলারোয়ায় সাড়ম্বরে গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার যুবকেন্দ্র উদ্বোধন
জানুয়ারি ২৯, ২০১৬ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
সাতক্ষীরার কলারোয়া ও সদর উপজেলায় দুইটি গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার যুবকেন্দ্র উদ্বোধন করা হয়েছে। এজন্য বৃহস্পতিবার সকালে সদরের পলাশপোলস্থ যুবকেন্দ্রে ও বিকালে কলারোয়া পাবলিক ইন্সটিটিউটের মুক্তমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় উদ্বোধনী সভা। সভায় সভাপতিত্ব করেন আমেরিকায় নিযুক্ত সাবেক রাষ্ট্রদূত বিশিষ্ট কুটনীতিক মো: হুমায়ুন কবির। দুই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সদর ও কলারোয়া উপজেলার চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু ও ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সভাপতি ও দৈনিক কালের চিত্রের সম্পাদক অধ্যক্ষ আবু আহমেদ। অনুষ্ঠানে গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার যুবকেন্দ্র’র ধারণা ও দৃষ্টিভঙ্গি উল্লেখ করেন যুব কেন্দ্র’র উদ্যোক্তা বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইন্সটিটিউটের সিনিয়র রিসার্চ ডিরেক্টর মো: হুমায়ুন কবির ও দাতা সংস্থা সেফার ওয়ার্ল্ডের কান্ট্রি প্রোগ্রাম ম্যানেজার বিভাষ চক্রবর্তী। বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইন্সটিটিউটের সাতক্ষীরা জেলা কো অর্ডিনেটর আমিনা বিলকিস ময়না বলেন, বিট্রিশ হাই কমিশনের সহযোগিতায় সাতক্ষীরায় প্রতিষ্ঠিত যুবকেন্দ্র দুটি সাতক্ষীরা ও কলরোয়ার তরুণদের মধ্যে একজন তরুণকে যদি দেশপ্রেমের অঙ্গিকারে ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও প্রযুক্তির পথে নিয়ে আসা যায় সেটাই অনেক বড় স্বার্থকতা। গণতন্ত্র, ন্যায়বিচার ও সুশাসনের প্রচার অভিযানে ও সহায়তায় সাতক্ষীরা ও কলারোয়ার তরুণরা এগিয়ে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, কলারোয়া পাবলিক ইন্সটিটিউটের সভাপতি অধ্যাপক আবুল খায়ের, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামাল রেজা, জয়নাব বিনতে আহমেদ, রাশেদ হোসেন, জাকির হোসেন, আছমা খাতুন প্রমুখ। এছাড়াও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বক্তব্য রাখেন। সভাপতির সমাপনি বক্তব্যে আমেরিকায় নিযুক্ত সাবেক রাষ্ট্রদূত বিশিষ্ট কুটনীতিক মো: হুমায়ুন কবির বলেন, একটি দেশকে এগিয়ে যেতে হলে যুবসমাজের ভূমিকা অপরিসীম এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচারে যুব কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠায় যারা সহযোগীতা করেছেন তাদের বাংলাদেশ ইন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউট ও সেফার ওয়ার্ল্ড-এর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার যুবকেন্দ্রে অত্র এলাকার যুব সমাজ একত্রিত হয়ে বিনোদন ও খেলাধুলায় মনোনিবেশ করতে পারবে। তরুন সমাজই সমাজটাকে বদলে দিতে পারে। সমাজ পরিবর্তনে যুবসমাজের ভূমিকা অনেক। তরুন সমাজকে নিজেদের জন্য পথ তৈরী করতে হবে। যুব সমাজই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। তরুণ সমাজকে সহযোগীতা করলে এই জনপদ একদিন গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করে বাংলাদেশের মডেল হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হবে।